banglanewspaper

প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার গত নভেম্বর ২০১৭ হতে মানিক মিয়া এভিনিউতে গাড়িমুক্ত কর্মসূচি পালিত হয়ে আসছে। আগামীতে নীলক্ষেত থেকে পলাশী মোড় এবং মোহাম্মদী হাউজিং সোসাইটির ৩নং সড়কে এই কর্মসূচি পালিত হবে। এছাড়া ঢাকায় এলাকাভিত্তিক এ রকম আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে একটি ওয়ার্কিং কমিটি সম্ভাব্যতা যাচাই করে পরবর্তী পদক্ষেপ সুপারিশ করবেন।

বুধবার (৪ এপ্রিল) বেলা ১১ টায় ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ এর উদ্যোগে সংস্থার সভা কক্ষে কার ফ্রি স্ট্রিট সম্পর্কিত সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। 

সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ এর নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ আহম্মদ। তিনি ২০১৭ সালের নম্বেভর মাস থেকে সফলভাবে কার ফ্রি স্ট্রিট পালন করায় সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন কার ফ্রি স্ট্রিট কর্মসূচির নানা আয়োজন মানুষকে আকৃষ্ট করেছে। আমরা ঢাকা শহরের অন্যান্য জায়াগাও কার ফ্রি স্ট্রিট করার চিন্তা করছি। ইতিমধ্যে স্থানীয় অধিবাসী এবং ৩৩ ওয়ার্ড কার্যালয়ের উদ্যোগে ডাব্লিউবিবি ট্রাস্ট এর সহযোগিতায় মোহাম্মদী হাউজিং সোসাইটি এর ৩ নং সড়কে কার ফ্রি স্ট্রিট পালন করছে। আগামীতে আমরা ঢাকা শহরের অন্যান্য জায়গায়ও এ ধরনের কর্মসূচি পালনের চিন্তা ভাবনা করছি। 

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জনাব কামরুল আহসান বলেন, আমরা প্রথম দিকে মানিক মিয়া এভিনিউর মত ব্যস্ত সড়কে কার ফ্রি স্ট্রিট পালন করা নিয়ে সংশয়ে ছিলাম। কিন্তু আমরা সফল হয়েছি। মানিক মিয়া এভিনিউ এর কর্মসূচি মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখেছে। এই কর্মসূচির সফলতা সম্পর্কে মাননীয় মন্ত্রী মহাদয়কে অবহিত করা হবে। ঢাকা শহরের অন্য কোন স্থানে এ রকম কর্মসূচির উদ্যোগ নেয়া হলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সহযোগিতা প্রদান করা হবে। 

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এর নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ এর সহযোগী অধ্যাপক, মুসলেহ উদ্দিন হাসান বলেন, ১৯৯৮ সাল থেকে বুয়েট ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ এর সাথে কাজ করছে। তিনি কার ফ্রি স্ট্রিট কর্মসূচির প্রচারণায় বুয়েট,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য সংস্থাকে সম্পর্কিত করার আহ্বান জানান। তিনি নীলক্ষেত থেকে পলাশী পর্যন্ত সড়কে কার ফ্রি স্ট্রিট পালন করার প্রস্তাব দেন। 

ঢাকা মেট্রাপলিটন পুলিশ এর ডিসি ট্রাফিক মোঃ সাইফুল হক বলেন, মনিক মিয়া এভিনিউ এর পাশপাশি ঢাকার ৪ টি ট্রাফিক জোনে গাড়িমুক্ত কর্মসূচি পালন করা যেতে পারে। যা ঢাকা শহরের ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা ও নির্মল বিনোদনের সুযোগ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখবে। 

ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট এর প্রোগ্রাম ম্যানেজার মারুফ হোসেন বলেন, আগামীতে কার ফ্রি স্ট্রিট কর্মসূচি সুষ্ঠুভাবে পালন করার জন্য একটি গাইড লাইন প্রণয়ন করা প্রয়োজন। পাশাপাশি তিনি বলেন ঢাকা শহরে এমন অনেক সড়ক রয়েছে যেখানে গাড়ি চলাচল বন্ধ রেখে শুধুমাত্র পাথচারী ও সাইকেলে চলাচল হয়ে থাকে। এ ধরনের সড়কগুলো চিহ্নিত করে ম্যাপে উল্লেখ করা হলে ঢাকা শহরের ভাবমূর্তি বৃদ্ধি পাবে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ এর অতিঃ নির্বাহী পরিচালক জাকির হোসেন মজুমদার, প্রকল্প ব্যবস্থাপক নূর-ই-আলম, ,বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্লানার্স (বি.আই.পি) এর বোর্ড মেম্বার হামিদুর হাসান নবীন এবং বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপা’র এর যুগ্ম সম্পাদক মিহির বিশ্বাসসহ গাড়িমুক্ত কর্মসূচি আয়োজনকারী সরকারি-বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ। 

সভায় বিস্তারিত আলোচনার নিম্নরূপ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়:
    
১। পলাশী হতে নীলক্ষেত পর্যন্ত ‘গাড়ী মুক্ত সড়ক‘ হিসেবে প্রতিমাসের ৩য় শুক্রবার উদযাপন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। তবে এ বিষয়ে ডিএমপি, স্থানীয় জনসাধারণ, ক্লাব, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

২। উত্তরা আবাসিক এলাকার বিভিন্ন সেক্টরের কল্যাণ সমিতির সহায়তায় সেক্টরের বিভিন্ন সড়ক ‘গাড়ী মুক্ত সড়ক‘ হিসেবে ব্যবহারের জন্য জনাব নূর-ই-আলম, প্রকল্প ব্যবস্থাপক, বিআরটি প্রকল্প ও জনাব আবুল খায়ের, ট্রাফিক এনফোর্সমেন্ট অফিসার (পুলিশ সুপার)-কে উক্ত এলাকার কল্যাণ সমিতির সাথে সভা করে প্রস্তাব পরবর্তী সভায় উপস্থাপন করার জন্য সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। 

৩। ঢাকার প্রায় ২০টি অযান্ত্রিক সড়ককে ম্যাপিং করার ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।  ড. মো: মোহলেহ উদ্দিন হাসান, সহযোগী অধ্যাপক, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ, বুয়েট-আহবায়ক; জনাব মো: নাসির উদ্দিন তরফদার, ট্রান্সপোর্ট ইঞ্জিনিয়ার, ডিটিসিএ-সদস্য; এডিসি প্রশাসন, ট্রাফিক, ডিএমপি-সদস্য; জনাব মারুফ হোসেন, প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ডব্লিউবিবি ট্রাস্ট-সদস্য; জনাব হামিদুল হাসান নবীন, বোর্ড মেম্বার, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্লানার্স-সদস্য-সচিব।

৪। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত মাননীয় মন্ত্রীকে সংসদ ভবনের সড়কের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো ও আজকের সভার সিদ্ধান্ত অবহিত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। 

৫। ডিএমপি’র ৪টি জোনের ৪টি সড়ককে ‘গাড়ী মুক্ত সড়ক‘ হিসেবে প্রতিমাসের একটি নির্দিষ্ট দিন ব্যবহারের প্রস্তাব যাচাই করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পরবর্তী সবায় ডিএমপি’র ৪টি জোনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এবং অনুষ্ঠানের প্রচারের জন্য মিডিয়াকে সভায় আমন্ত্রণ জানানোর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। 
 

ট্যাগ: banglanewspaper গাড়িমুক্ত ঢাকা