banglanewspaper

অবশেষে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুলা ডি সিলভা। দুর্নীতির দায়ে ১২ বছরের কারাদণ্ডের আদেশের তিন দিন পর তিনি আত্মসমর্পণ করলেন।

রায় ঘোষণার পর তিনি একটি স্টিলওয়ার্কার্স ইউনিয়নের বিল্ডিংয়ে অবস্থান করছিলেন। শনিবার তিনি ওই বিল্ডিং ছেড়ে সাওপাওলো নিকটবর্তী তার বাড়ির দিকে রওনা হন। তখন পুলিশ ৭২ বছর বয়সি এ নেতাকে গাড়িতে করে নিয়ে যায়। সে সময় বেশ কয়েকজন সমর্থক তার গাড়ি ঘিরে ছিলেন।

আত্মসমর্পণের পর লুলা ডি সিলভা বলেন, তিনি তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মেনে চলবেন, তবে তিনি নির্দোষ।

ব্রাজিল এর গ্লোবোনিউজ এর ফুটেজে দেখা যায় যে, লুলা এবং তার দেহরক্ষীরা বিল্ডিং থেকে ভিড় ঠেলে বাইরে বেরিয়ে আসছেন। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর কুরিতিবার কারাগারে কারাবাস করবেন তিনি।

লুলা দাবি করেন, রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে এ রায় দেওয়া হয়েছে। আগামী অক্টোবরে অনুষ্ঠিতব্য প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি যাতে অংশগ্রহণ করতে না পারেন, তাই এমনটা করা হয়। তবে নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের মধ্যে লুলা সবচেয়ে এগিয়ে আছেন বলে এক জরিপে জানা যায়।

২০১৬ সালে এক মামলার রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে ব্রাজিলের আদালত আদেশ দেন, প্রথম আপিল খারিজ হওয়ার পর আসামিকে কারাগারে যেতে হবে। লুলার মামলার ক্ষেত্রেও তাই করা হয়েছে।

সমুদ্রতীরে অ্যাপার্টমেন্ট করার জন্য প্রায় ১১ লাখ ডলার ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ প্রমাণিত হলে গত জুলাইয়ে তাঁকে নয় বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। লুলা এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন। এ বছরের জানুয়ারিতে আদালত তা খারিজ করেন এবং সাজার মেয়াদ বাড়িয়ে ১২ বছর করা হয়।

লুলা ২০০৩ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

ট্যাগ: banglanewspaper পুলিশ ব্রাজিল প্রেসিডেন্ট