banglanewspaper

মনোহরদী প্রতিনিধি: পুলিশকে ভয়ভীতি প্রদর্শন, অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়ায় মনোহরদী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো: সাইদুর রহমান শফিকুলের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

গত শনিবার সন্ধ্যায় নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে জিডিটি করেন এএসআই সোহেল রানা। তার জিডি নং-৩১৫, তারিখ ০৭-০৪-১৮।

তিনি লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, মাদক উদ্ধার ও ওয়ারেন্ট তামিল ডিউটি কালীন সময়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি হেতেমদী ব্রীজ সংলগ্ন মাদক সেবনকারীরা মাদক সেবন করছে। ওই সংবাদের ভিত্তিতে ওসি সাহেবকে অবহিত করে, এএসআই সাইদুল ও সঙ্গীয় ফোর্সসহ ওইস্থানে পৈাছালে আমাদের উপস্থিতিটের পেয়ে দৌড়াইয়া পালাইয়া যায়।

কিছুক্ষণ পর একটি নাম্বার থেকে থানা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল পরিচয় দিয়ে আমাকে বলেন, কার হুকুমে ঐ জায়গায় গিয়েছি। পরবর্তীতে থানা ছাত্রলীগের সভাপতির এলাকায়, সভাপতির অনুমতি ব্যতিত কাউকে ধরলে আমার খবর আছে বলে আমাকে হুমকি দেয় এবং যেকোন সময় বিপদে ফেলবে বলেও হুমকি দেয়।

ছাত্রলীগের ওই নেতা ও এএসআইয়ের মধ্যে কথোপকথন তুলে ধরা হলো:

সভাপতি: হ্যালো

এএসআই: হ্যালো

সভাপতি: হ্যালো, শফিকুল, এএসআই সোহেল?

এএসআই: ভাই একটু পরে কথা বলি, একটু ব্যস্ত আছি।

সভাপতি: ধুর মিয়া, আপনে আমার লগে আগে কথা কন। পরে অন্য কাজ করেন। ফাজলামি করেন মিয়া।

এএসআই: হে বলেন।

সভাপতি: ছাত্রলীগের পোলাপাইন হলে আপনে কী উল্টা পাল্টা কথা বলেন মিয়া।

এএসআই: আমি কী উল্টা পাল্টা কথা বলছি, বলেন। শফিকুল ভাইয়ের লোক হলে এরকম জায়গায় বসে থাকতো না। এরকম নির্জন জায়গায় বসে থাকতো না। 

সভাপতি: সে চালাকচর থেকে আসতেছে। এখানে সাদি ভাই। আর আপনি উল্টাপাল্টা কথা বলেন মিয়া। 

এএসআই: কী উল্টাপাল্টা কথা বলছি। আপনি জিঙ্গাসা করেন। বলছি সে এরকম একটা নির্জন জায়গায় বইসা রয়েছে কেন।

সভাপতি: সে বইসা রইছে না। সে চালাকচর থেকে মনোহরদী আসতেছে। আপনি তারে আটকাইছেন। 

এএসআই: আমি একা ছিলাম না। এসআই সাইফুল ভাই ছিল। 

সভাপতি: ফাজলামি করেন মিয়া। আমি মনোহরদী থানা কী জ্বালাইয়া পুরইয়া খাইছি।

এএসআই: এ কথা কে বলছে আপনারে।

সভাপতি: সে কিন্তু আমার সামনে দাড়ানো। 

এএসআই: আপনে বলেন কোথায়, আমি আসতেছি।

সভাপতি: আপনি এখানে সরকারি চাকরি করনে, আপনারে কী দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অন্য বেটার সুদের টাকা তুলে দেওয়া। আপনে আমার এরিয়ার ভিতরে কোন বিষয়ে নাক গলাবেন না। আপনি সরাসরি ওসির সাথে কথা বলেন। আপনি পুরাটা অঞ্চল জ্বালাইয়া খাইছেন। 

এএসআই: ওকে ভাই, ঠিক আছে। 

সভাপতি: আরেক দিন যদি শুনি আপনি আমার এলাকায় ঢুকছেন অনুমতি ছাড়া তাইলে আপনার খবর আছে। 

এএসআই: আচ্ছা ভাই, ওকে ভাই, থ্যাংকস্

ট্যাগ: Banglanewspaper মনোহরদী পুলিশ এএসআইকে হুমকি