banglanewspaper

মিজানুর রহমান সোহেল, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ জেলার নবগঠিত শায়েহস্তাগঞ্জ উপজেলার নছরতপুরে সিএনজি (অটোরিক্সা) শ্রমিক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ৭’শ শ্রমিকের বিরুদ্ধে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শায়েস্তাগঞ্জ থানার এসআই আব্দুল ওয়াদুদ বাদী হয়ে ৮৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৭শত জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করে।

শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করে হবিগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম জানান, পুলিশ শ্রমিক সংঘর্ষের ঘটনার মামলায় ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিকেলে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে।

এদিকে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২৩ সিএনজি অটোরিক্সা আটক করেছে।

এ ব্যাপারে শায়েস্তাাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসিম উদ্দিন জানান, ঢাকা সিলেট মহাসড়কে সিএনজি অটোরিক্সা চলাচল করলে বৃহস্পতিবার ৫টি গাড়ি আটক করে হাইওয়ে পুলিশ। পরে সিএনজি শ্রমিক ও মালিকদের পক্ষ থেকে সিএনজিগুলো ছেড়ে দেওয়ার জন্য দাবি করা হয়।

পুলিশ সিএনজি ছেড়ে না দেওয়ায় শুক্রবার সকালে শ্রমিকরা নছরতপুর মোড়ে মহাসড়কে অবরোধ করলে পুলিশ বাধা দেয়। এর জের ধরে শ্রমিকরা পুলিশের উপর হামলা করে।

উল্লেখ্য, এর আগে হবিগঞ্জের ঢাকা-সিলেটে মহাসড়কে সিএনজি চলাচল করলে বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় পুলিশ। এর প্রতিবাদে শুক্রবার সিএনজি সংগঠনের শ্রমিকরা ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে মহাসড়কে আন্দোলনে নামে। এ সময় পুলিশ তাদেরকে সড়িয়ে দিতে চাইলে দু’পক্ষের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে পুলিশ ১৫ পুলিশ সদস্যসহ অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা হল, এসআই দেলোয়ার হোসেন, এএসআই আব্দুল ওয়াদুদ, কনস্টেবল সুবিত, আকাশ, মশিউর রহমান, প্রণব, আশরাফ, জহিরুল ইসলাম, সুবির, ওয়াকিব মিয়া, রোমান আহমেদ, আব্দুল খালেক, রকিব আহমেদ, মকবুল হোসেন।

এছাড়াও আহত শ্রমিকদের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও হবিগঞ্জ শহরের বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়।

ট্যাগ: Banglanewspaper হবিগঞ্জ