banglanewspaper

সাপের সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে প্রাণ দিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হলদিবাড়ি বেলতলির  অনিল রায়। 

জানা যায়, কাজ সেরে বৃহস্পতিবার পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন হলদিবাড়ি বটেরডাঙা এলাকার বাসিন্দা অনিল। অন্ধকারে তার হাতে ছোবোল মারে একটি কেউটে সাপ। ক্ষত নিয়েই সাপটিকে চেপে ধরে চিত্কার করতে থাকেন তিনি। যুবকের চিত্কার শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন এলাকাবাসী।

প্রত্যক্ষদর্শী নরেশ রায় জানান, চিৎকার শুনে এসে এই কাণ্ড দেখার পর খবর দেয়া হয় পুলিশকে। এরপর থানা থেকে অ্যাম্বুলেন্স পাঠালে তাকে নিকটবর্তী হলদিবাড়ি হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তবে প্রতিবেশি রবি দাস জানাচ্ছেন ভিন্ন কথা। সাপ ধরে সেলফি তোলার পর সাপের মাথায় বাড়ি দেয় অনিল রায়। আর এরপরে কেউটে সাপ ছোবল দেয় তাকে।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, গত কয়েক বছর ধরে স্বঘোষিত সর্প বিশারদ হিসেবে দাবি করা অনিল রায় এলাকায় সাপ ধরতেন। গত পরশুদিনও সাপ ধরে জঙ্গলে ছেড়ে দেন তিনি।

বৃহস্পতিবার রাতে একটি কেউটে সাপকে রিকশা চাপা দেয়। খবর পেয়েই দোকান ফেলে হলদিবাড়ি বটেরডাঙা এলাকা থেকে বেলতলিতে গিয়ে সাপটিকে ধরেন অনিল রায়। এরপর সাপ গলায় পেঁচিয়ে সেলফি তুলতে থাকেন তিনি। অনিল ওই সময় অপ্রকৃতিস্থ ছিলেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

অনিলকে সাপটি ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ করেন এলাকাবাসী। কিন্তু তিনি কোনো কথা না শুনে মোবাইল দিয়ে বিভিন্নভাবে বার বার ছবি তুলতে থাকেন। একপর্যায়ে সাপটির মাথায় আঘাত লাগে। এরপরই সাপটি ছোবোল মারে অনিলকে।

ট্যাগ: banglanewspaper সাপ