banglanewspaper

শরীফ আনোয়ারুল হাসান রবীন: মাগুরা শহরের সুপরিচিত পলি ক্লিনিক কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে নবজাতক বদলের অভিযোগ উঠেছে। অর্থের বিনিময়ে ছেলে সন্তান বদলে এক প্রসুতি কে মেয়ে ধরিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে তদের বিরুদ্ধে।

তবে ক্লিনিকের মালিক ও সিজারকারী চিকিৎসক ডাক্তার মুক্তাদুর রহমান ক্যামেরা ও সাংবাদিকদের সামনে কোন সদুত্তর না দিয়ে উল্টো ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন।

মাগুরা সদরের নরসিনহাটি গ্রামের সাগর হোসেন অভিযোগ করেন,  সন্তান প্রসবের জন্য শুক্রবার তিনি তার স্ত্রী কে শহরের পি টি আই এর সামনে পলি ক্লিনিকে নিয়ে আসেন। এর অগে তিনি তার স্ত্রী কে তিনবার আল্ট্রানোগ্রামের মাধ্যমে তাদের ছেলে সন্তান হবে এমনটা নিশ্চিত হন। এদিন সিজারের পরও ওটি থেকে আয়া তাদের ছেলে সন্তান হয়েছে বলে মিস্টি খাওয়ার জন্য বকশিশের টাকাও নেন।

কিন্তু পরে তাদের কাছে একটি মেয়ে সন্তান ধরিয়ে দেয়া হয় এবং তিনি খোজ নিতে যেয়ে দেখতে পান ডাক্তার মুক্তাদুর রহমান একই সময় ওটি তে  তিনটি সিজার করছেন। যার মধ্যে একটি পুত্র ও দুইটি কন্যা সন্তান জন্ম হয়।

এ সময় ওটিতে গিয়ে এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রথমে এখানে কারো কোন পুত্র সন্তান হয়নি বলেই জানানো হয় তাকে। কিন্তু সে নিজে গিয়ে একটি পুত্র সন্তান দেখতে পান। যার প্রেক্ষিতে ডাক্তার ও আয়ারা অর্থের বিনিময়ে তাদের পুত্র সন্তান পাল্টিয়ে অন্যের কন্যা সন্তান ধরিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ করছেন তিনি। 

তিনি আরও জানান, ইতিমধ্যে আসে পাশের অনেকের থেকে খোজ নিয়ে এই ক্লিনিকের বিরুদ্ধে প্রায়ই বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম, দুর্নিতির অভিযোগ উঠার কথাও জানতে পেরেছেন তিনি। মালিকপক্ষ ডাক্তার স্থানিয় একজন প্রভাবশালী ব্যাক্তি হওয়াই তাদের বিরুদ্ধে কখনো কোন ব্যাবস্থা নেয়া হয়না, অর্থ ও প্রভাব খাটিয়ে সব ম্যানেজ করে করে ফেলা হয়। অধিকাংশ গ্রাম্য নিরিহ মানুষ এখানে চিকিৎসা নিতে আসেন যাদের বেশি কিছু বলা করার থাকে না। কিন্তু এবার তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবি করছেন।

এ ব্যাপারে তাৎক্ষনিক ভাবে মাগুরা সদর থানায় মৌখিক অভিযোগ করেছেন, আজ মামলার  প্রস্তুতি চলছে বলেই জানান সাগর হোসেন।

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি তদন্ত মাহাবুব আল হাসান জানান, মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ বিষয়টি গুরুত্বের সাথেই খাতিয়ে দেখছেন। মামলা হলে বাকি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

ট্যাগ: Banglanewspaper মাগুরা