banglanewspaper

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: স্বেচ্ছামৃত্যুর জন্য নিজের দেশ ছেড়ে পাড়ি দিয়েছিলেন সুইজারল্যান্ডে। ১০৪তম জন্মদিনে একটাই ইচ্ছা ছিল। তিনি মরতে চেয়েছিলেন। সহায়তার মাধ্যমে স্বেচ্ছামৃত্যু অধিকাংশ দেশেই অবৈধ হলেও অস্ট্রেলিয়ায় এর অনুমতি নেই। 

সে কারণেই দেশ ছেড়ে সুইজারল্যান্ডের পথে পাড়ি দিয়েছিলেন পরিবেশ ও উদ্ভিদবিদ ডেভিড গুডাল। অবশেষে বৃহস্পতিবার সেখানেই একটি হাসপাতালে স্বেচ্ছামৃত্য বরণ করলেন এই বিজ্ঞানী।

তিনি কোনো রোগাক্রান্ত ছিলেন না। বয়সের কারণে শরীর ভেঙে যাচ্ছে তাই বেঁচে থাকার কোনো ইচ্ছাই আর কাজ করছে না বলে জানিয়েছিলেন। সুইৎজারল্যান্ডে চিকিৎসকদের সহায়তায় নিজের জীবন শেষ করলেন ডেভিড গুডাল।

এর আগে বাড়িতে একাধিকবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেন গুডাল। হাসপাতালেও নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। তারপরই পরিবার ছেড়ে সুইজারল্যান্ডে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

সুইস ফাউন্ডেশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, নিজের দেশে সহায়তার মাধ্যমে আত্মহত্যায় সরকারের সহযোগিতা পাননি ডেভিড গুডাল। সে কারণে, তিনি সুইৎজারল্যান্ডে চলে আসেন।

কোনও বড় ব্যাধি বা রোগে ভুগছিলেন না গুডাল। কিন্তু বার্ধক্যজনিত সমস্যায় বিগত কয়েক বছরে তার স্বাস্থ্য অনেকটাই খারাপ হয়ে গিয়েছিল। এভাবে বেঁচে থাকতে চাচ্ছিলেন না তিনি। সেই কারণে তিনি স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন করেন।

বাসেলের একটি ক্লিনিকে প্রাণঘাতী নেম্বুটাল ইঞ্জেকশন দেয়া হয়। তারপরেই তার স্বেচ্ছামৃত্যু নিশ্চিত করা হয়। গত বুধবার শেষ সাক্ষাতকারে গুডাল জানান, তিনি স্বেচ্ছামৃত্যু বরণ করতে পারছেন বলে বেশ খুশি। তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, তার স্বেচ্ছামৃত্যুর পর অস্ট্রেলিয়া স্বেচ্ছামৃত্যু বা সহায়ক আত্মহত্যার আইন নিয়ে ভাবনাচিন্তা করবে।

ট্যাগ: Banglanewspaper বিজ্ঞানী ডেভিড গুডাল স্বেচ্ছায়মৃত্যু