banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর): গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার ফকরুদ্দিনের মোড় হতে কালামের মোড় পর্যন্ত ১কিলো রাস্তাটি প্রতিদিন লাখো মানুষের চরম দূর্ভোগের কারন হয়ে দাড়িয়েছে। এই এলাকায় ৬/৭টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১ থেকে ২ লাখ শ্রমীক এবং হাজারো জনসাধারণ প্রতিনিদিই চলাচল করে থাকে। এছাড়াও গণবসতিপূর্ণ এলাকা হওয়ায় বাসা বাড়ীতে ভাড়াটিয়ার সংখাও কমনা। আনছার রোডের মেঘনা গ্র“পের ফকরুদ্দিন টেক্সটাইল বর্জ্য পয়োনিষ্কাশনের জন্য ২কিলো মিটার কার্পেটিং রাস্তা খনন করে পাইব বসানো হয়েছে। 

গত জানুয়ারী মাসে এই খনন কাজ শুরু হলে এক মাসে পাইব বসানো কাজ শেষ হয়। কিন্তু পাইপ বসানোর তিনমাস অতিক্রম হওয়ার পরও এখন পর্যন্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি রাস্তার পরবর্তী মেরামতের কাজ সম্পন্ন করেনি। যদিও স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় ও শ্রীপুর পৌরসভা অনুমতি পত্রে স্পষ্ট উল্লেখ্য রয়েছে যে, পাইপ বসানোর কাজ সম্পূর্ণ হওয়ার সাথে সাথেই রাস্তার মেরামত কাজ শেষ করতে হবে। 

এই ব্যাপারে ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের নেতা রুহুল আমিন জানান, রাস্তা খননের পর যখন ভরাট করা হচ্ছিলনা তখন ঠিকাদারের সরঞ্জামাদি এলাকাবাসী জব্দ করেছিল। এরপর পুলিশ দিয়ে আমাকে মামলা করে হয়রানির হুমকী দিয়েছিল ঠিকাদার। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের ব্যাপারে কেহ প্রকাশ্যে প্রতিবাদ করতে পারে না।

ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুবেল মিয়া জানান, রাস্তা চলাচলের উপযোগী না থাকায় এখন আমরা আমাদের নিজস্ব খরচে ইটের সুপরি ফেলে সাময়িক ভাবে চলাচল করছি। এলাকাবাসীর দাবী যত তারাতারি সম্ভব আমাদের কষ্ট লাগবে এই রাস্তাটি মেরামতের ব্যবস্থা করা হউক।

এ ব্যাপারে ঠিকাদার গোলাপ হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পাইব বসানোর কাজ শেষ হয়েছে। আমার কাজ আমি করেছি, রাস্তা মেরামতের কাজ পৌরসভা কর্তৃক করার কথা। এখনো আমার রাস্তা খনন করে পাইব বসানোর অনেক কাজ বাকি রহিয়াছে। কাহারো অসুবিধা হলে সেটা আমার দেখার বিষয় না। তবে বৃষ্টির কারনে কাজ কিছু দিন দেরি হচ্ছে। অতি শীগ্রই রাস্তা মেরামতের কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় মালামাল আনা হবে।

শ্রীপুর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিলাল উদ্দিন দুলাল জানান, ঠিকাদারের সাথে আমি কথা বলেছি কিন্তু সে দেরি করার কারণ বলতে পারেনি। তাই আমার উদ্যোগে রাস্তাটির কিছু অংশ ইটের সুপরি ফেলে সাময়িক ভাবে জন সাধারণ চলাচলের ব্যবস্থা করেছি। কিন্তু ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কেন পৌরসভার পরিপূর্ণ রাস্তা খনন করে আবার এখন কেনইবা গরিমশি করছে এ প্রশ্নের জবাব তিনি দিতে পারেনি।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান জানান, পাইব বাসানো ঠিকারদারকে সাথে সাথেই রাস্তা মেরামতের নির্দেশনা দেওয়া ছিল। কিন্তু কি কারনে কাজ দেরি হয়েছে তা আমার জানা নেই। এ বিষয়ে পৌরসভার প্রকৌশলীকে খোঁজ নিয়ে পরবর্তীত ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দিয়েছি।

ট্যাগ: banglanewspaper শ্রীপুর