banglanewspaper

মোহাম্মদ রনি খাঁ, গণ বিশ্ববিদ্যালয়: মা! ছোটো একটি শব্দ। কিন্তু মা শব্দটির তাৎপর্য এতই বেশি যে বিশাল পৃথিবীর আকাশকে কাগজ এবং সাগরকে কলম করে লিখলেও লিখে শেষ করা সম্ভব হবে না। মা শব্দটি শুনলেই প্রতিটি মানুষের শ্রদ্ধা, ভক্তি, ভালবাসা প্রকাশ পায়। অতি মধু মাখা শব্দ ‘মা’।

মা শব্দটির মর্যাদা নিয়ে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) বলেছেন, “ মা-বাবাই হলো তোমার জান্নাত এবং জাহান্নাম” ( ইবনে মাজাহ মিশকাত-৪২১পৃষ্ঠা)। যে কারণে শুধু একবার মা বলে ডাকলেই এক স্বর্গীয় পুণ্যে হৃদয়-মন অমিয় সুধায় প্লাবিত হয়। মা ত্রিভুবনের সব থেকে দামি সম্পদ। মা মানেই অন্ধকারে একবুক ভালোবাসা, স্নেহের অফুরান ভান্ডার। বিপদে ধৈর্য্য ধরার সম্বল। মা মানের দুঃখের আশ্রয়। মা মানের বেঁড়ে ওঠার অনন্য প্রত্যয়।

সত্যি বলতে পৃথিবীতে কোনো মহা মানবের কোনো উপমা জানা নাই মায়ের আদর, ভালবাসা, স্নেহ-প্রীতি সংজ্ঞায়িত করার। মা সম্পর্কে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন বলেছেন, ‘আমি যা হয়েছি বা যা হতে চাই, তার সবটুকুর জন্যই আমি আমার মায়ের কাছে ঋণী। আমার মায়ের প্রার্থনাগুলো সব সময় আমার সঙ্গে সঙ্গে ছিল।’ বিখ্যাত ফরাসি ঔপন্যাসিক বালজাক বলেছেন, ‘মায়ের হৃদয় হচ্ছে এক গভীর আশ্রয়, সেখানে আপনি সহজেই খুঁজে পাবেন মমতার সুশীতল ছায়া।

প্রতিটি সন্তানের কাছেই তাঁর মায়ের মূল্য অপরিসীম। তবে, মা দিবস প্রথম পালন করা হয় ১৯১১ সালের মে মাসের দ্বিতীয় রোববার আমেরিকাজুড়ে। সে সময় আমেরিকায় মায়েদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে ‘মাদারিং সানডে’ নামে একটি বিশেষ দিন উদযাপন করা হতো। তারপর ১৯১৪ সালে দিবসটি রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের সিদ্ধান্ত হয়। মা দিবস উদযাপনের ধারণাটি প্রথম মাথায় আসে মার্কিন সমাজকর্মী জুলিয়া ওয়ার্ডের।

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষার্থী শারমীন সুলতানা তন্বীর নিকটও রয়েছে মা শব্দটির ভিন্ন ব্যাখা। সত্যি বলতে মা কোনো শব্দ নয়, মা মানে সন্তানের পূর্ণতা, মা মানের সন্তানের সাফল্যের চাবি কাটি। তাঁর মতে, “ মা শব্দটি অনেক দ্রুত উচ্চারিত হলেও, শব্দটি বলার সাথে সাথে মনের মধ্যে অজানা এক প্রশান্তি ছড়িয়ে পড়ে। আমার মা আমার পরম বন্ধু, আমার প্রথম শিক্ষক, আমার যা কিছু প্রথম তা সবই মায়েরই কল্যাণে। সারাদিন কর্মস্থলে কাজ শেষেও মা বাড়ি ফিরে আমার আবদার পূরণে একটুও ক্লান্ত হন না। শুধু কি আবদারের কাছেই মায়ের সীমা বদ্ধতা ? মা শিখিয়েছেন ন্যায় -অন্যায়, ঘাত-প্রতিঘাত জীবনে চলার পথের সকল অলিগলি! বিশ্ব মা দিবসে জানাই, সকল মায়ের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালবাসা। আর মা তোমায় ঘিরেই সাজাতে চাই আগামী ।”

মায়ের ভালোবাসায় কোনো স্বার্থ নেই, কোনো প্রাপ্তির প্রত্যাশা নেই। মা তার সন্তানকে বুকভরা ভালোবাসা, প্রাণঢালা আদর বিলিয়ে দিয়ে ধন্য হন। মা যেন সৃষ্টিকর্তার অপূর্ব এক সৃষ্টি।

ট্যাগ: banglanewspaper মা