banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর(গাজীপুর): গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়ক ও জনপদ বিভাগের নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে স্থানীয় কয়েকটি শিল্পকারখানার মালিকদের স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে সরকারি দলের কয়েক নেতা বর্জ্য পানি নিস্কাশনের নামে কার্পেটিং রাস্তা কেটে গভীর খনন করে সড়কগুলো যাতায়াতের অনুপোযোগী করে তুলেছে।

এতে করে লক্ষ লক্ষ জনসাধারণের চলাচলের বিঘ্ন ঘটলেও সরকারি দলের নেতাদের পকেট ভারী হয়েছে বলে স্থানীয় ভোক্তভোগীরা অভিযোগ করেন। ১৫ মে মঙ্গলবার দুপুরে একটি কারখানার উদ্যোগে বেহাল সড়ক সংস্কারের সময় একটি মহল তাতেও বাধা দেয়।

জানা গেছে, পৌর এলাকার বৈরাগীরচালা এলাকার ফখরুদ্দিন মোড়ের আনসার রোডের মেঘনা গ্রুপ কর্তৃপক্ষ নিজেদের কারখানার বর্জ্য পানি নিস্কাশনের সুবিধার্থে সরকারি ৩ কিলোমিটার কার্পেটিং সড়ক ভেকু দিয়ে সাড়ে আট ফুট খনন করে পাইপ লাইন স্থাপন করে। কিন্তু গত চার মাস আগে কাজ শেষ করলেও রাস্তার সংস্কার কাজ না করায় জনদুর্ভোগ চরমে উঠেছে। স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীসহ সাধারণ মানুষের জীবন অচল হয়ে পড়েছে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা চার কিলোমিটার ইটের সলিং ও কার্পেটিং রাস্তা কেটে পাইপ বসিয়ে সরকারের প্রায় কয়েক কোটি টাকার সড়ক নষ্ট করেছে। এই সড়কের চেয়ারম্যান বাড়ী মোড় থেকে ফখরুদ্দিন টেক্সটাইলের সামনে দিয়ে শ্রীপুর-মাষ্টারবাড়ী সড়ক হয়ে গাড়োপাড়া ইটের সলিং রাস্তা খনন করে মাধখলা খালে পানি নি:স্বরন করে। সড়ক বিভাগের নিয়ম কানুন না মেনেই স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ওমেদ আলী ও গোলাপ উদ্দিনের নেতৃত্বে রাস্তা খননের কাজ চালায়। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাটি জনগনের চলাচলের অনুপোযোগী হলেও সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেই। 

এ ব্যাপারে রাস্তা খননকারীরা জানান, পৌর কর্তৃপক্ষকে টাকা দিয়েই রাস্তা খনন করা হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে বলেন, কয়েকটি কারখানার ব্যক্তিগত সুবিধার্থে কার্পেটিং রাস্তা নষ্ট করে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়িয়েছে। সড়কের আইন অমান্য করে পেশী শক্তি খাটিয়ে স্থানীয় কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে যার যখন ইচ্ছা করে তখনই রাস্তা খনন করে।

রাস্তা অনুপোযোগী হওয়াতে স্থানীয় ফখরুদ্দিন টেক্সটাইল মিলের উদ্যোগে এ.জি.এম আবুল কালামের নেতৃত্বে খনন করা রাস্তার সংস্কার কাজ চালালে স্থানীয় একটি মহল ষড়যন্ত্র করে রাস্তার কাজটি বন্ধ করে দেয়ার চেষ্টা করে।

এ.জি.এম আবুল কালাম জানান, রাস্তা খননের কারণে প্রতিনিয়ত লক্ষ লক্ষ টাকা অতিরিক্ত খরচ করতে হচ্ছে। তিনি আরও জানান, পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মেয়রকে অবগত করলেও রাস্তা সংস্কারের কাজে তারা এগিয়ে আসেনি। 

এ ব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিলাল উদ্দিন দুলাল জানান, কার্পেটিং রাস্তা কেটে কেউ পাইপ বসালে পুনরায় মানুষের যাতায়াতের উপযোগী করে দিতে হবে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে মানুষের চলাচলের অনপোযোগী রাস্তাটি কেউ সংস্কার করেনি। 

এ ব্যাপারে শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব আনিছুর রহমান, রাস্তা খনন শেষে বৃষ্টির কারণে সংস্কার কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। বৃষ্টি থামলে সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।

ট্যাগ: Banglanewspaper শ্রীপুর কার্পেটিং রাস্তা গভীর খনন পকেট ভারী