banglanewspaper

আলমডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার পল্লী পাইকপাড়ায় স্বামীকে বাড়ির পাশের মাঠে গাছে বেঁধে স্ত্রীকে রাতভর ধর্ষণ করা হয়েছে। শনিবার রাতে তাকে তিনজন পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণে সহযোগিতা করার অভিযোগে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর শ্বশুর-শাশুড়ি ও ননদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
 
ধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে রোববার সকালে মাঠ থেকে উদ্ধারের পর সারা দিন গোপনে বাড়িতে আটকে রাখা হয়। পুলিশ খবর পেয়ে রোববার সন্ধ্যায় তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সোমবার সকালে এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। গৃহবধূর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বিয়ের পর থেকেই পুত্রবধূকে স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে না পেরে শ্বশুর-শাশুড়ি ও ননদ নানাভাবে নির্যাতন করত। এরই একপর্যায়ে শনিবার রাতে স্বামী-স্ত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে পাষণ্ডরা। খবর পেয়ে রোববার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূর সঙ্গে কথা বলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. কলিমুল্লা।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে গৃহবধূ বলেন, আমাদের দু’জনকে কয়েকজন এসে বাড়ির পাশের মাঠে তুলে নিয়ে যায়। আমার স্বামীকে মাঠে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। আমাকে তিনজন মিলে ধর্ষণ করে। মুক্ত হয়ে বাড়ি ফেরার পর শ্বশুর-শাশুড়ি ও ননদ এ বিষয়ে মুখ খুলতে শুধু বারণই করেনি, ঘরে আটকে রাখে ও ভয়ভীতি দেখায়। পরে প্রতিবেশীরা বিষয়টি পুলিশকে জানায়।

আলমডাঙ্গা থানার ওসি আবু জিহাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে গতকাল (সোমবার) সকালে সাতজনের নামে মামলা করেছেন। মামলার পরপরই শ্বশুর-শাশুড়ি ও ননদকে গ্রেফতার করা হয়। অন্যদের খোঁজা হচ্ছে।

ট্যাগ: স্বামী স্ত্রীকে রাতভর ধর্ষণ