banglanewspaper

আত্মনিয়ন্ত্রণে গাঁথা ভালোবাসা 

শাফিউল কায়েস

ব্যস্ত এই নগরী। ব্যস্ত সবাই, ছুটে চলছে প্রয়োজন -অপ্রয়োজনে

পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে।

অনেক সময় আমরা  হারিয়ে ফেলি  কি প্রয়োজনে এই ছুটে চলা।

ব্যস্ত সকল কর্মশালা, ব্যস্ত সবাই  স্বার্থে।

 

এই ব্যস্ত শহরের, ছুটে চলা এই পৃথিবীর মাঝে ব্যস্ত লোকালয়ে হঠাৎ করে তোমার আমার পরিচয়।

 

প্রেম বা ভালোবাসা কি?আমি আগে বুঝতাম না!তোমাকে দেখার পর থেকে আমি বুঝতে পারি।

জানি না কেন তোমাকে কাছে পেতে সবসময় ইচ্ছা করে? মনে ইচ্ছা হয় তোমার কোমল দুটি হাত ধরে সারাটা জীবন কাটিয়ে দেই।

 

 

তোমাকে প্রথম দেখা,আমার এক ফ্রেন্ডের ভাইয়ের বিয়েতে।

বিয়ে বাড়িতে সবাই ব্যস্ত,আমিও ব্যস্ত ছিলাম শুধু তোমাকে দেখার জন্য। বন্ধুদের সাথে আড্ডার ফাঁকেফাঁকে তোমাকে দেখতাম।

আমাকে তোমার পছন্দ হয়েছিলো কি না জানি না!তবে আমি যখন তোমার দিকে তাকিয়ে থাকতাম, কেন জানি তুমিও আমার দিকে তাকিয়ে থাকতে।আমাদের চোখাচোখির ভাষাতে আমি বুঝে নিয়েছিলাম তুমিও আমাকে পছন্দ করতে।

 

তোমাকে দেখার পর থেকে আমার  খুব ইচ্ছা করছিলো তোমার নামটা জানতে।

অনেক অপেক্ষা পর হঠাৎ  সমবয়সী একটা মেয়ে ডাক দিলো নেহা বলে ডাক দিলো, আর সেই ডাকে তুমি সাড়া দিয়ে ছিলে।

বিনা পরিশ্রমে জানা হয়ে গেলো তোমার নাম।

নামটাতে কেমন জানি প্রেম প্রেম গন্ধ খুঁজে পেলাম,

এই প্রেমের তোমার আমার মাঝে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

 

অহ! 

আমার পরিচয়টা এখনো দেয়া হয়নি।আমার নাম শান্ত।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করছি।

আর যে বন্ধুর ভাইয়ের বিয়ে খেতে গেছিলাম, সে সবুজ।

সবুজ অনেক এক্সট্রা অর্ডিনারি, সে খুব ভালো কবিতা লেখে।

 

 

আমি বরের গাড়ীতেই  বসে ছিলাম!

তুমি যখন বরকে মিষ্টি মুখ করানোর জন্য এসেছিলে তখন তোমাকে দেখে আমার মনে ধরে। হৃদস্পন্দন হঠাৎ করে বেড়ে গিয়ে ছিলো দাঁড়িয়ে ছিলো মনে হয় একশতে । কি ভাবে যে বরের গাড়ীতে আসার সুযোগ পেলাম সে ইতিহাস আমার অজানা!

 

তোমার মেঘ বরণ কেশ,তোমার চোখ,তোমার ব্যবহার আমাকে

পাগল করে ফেলেছিলো।

আগে কখনো আমি প্রেমে পড়ি নি। কিন্তু

তুমি যদি প্রশ্ন করোঃ"আমাকে কি জন্য তোমার পছন্দ হয়েছিলো?

-এর সঠিক উত্তর জানা নেই, তবে তোমাকে প্রথম দেখায় ভালোবেসে ফেলেছিলাম এটাই সত্য।

 

তোমার সম্পর্কে আরো জানতে চেষ্টা করলাম, কিন্তু কোন ভাবেই জানতে পারলান না।কারণ তোমার আমার মুখোমুখি কোন কথা হয়নি, কিন্তু চোখাচোখি হয়েছিলো।

 

তবে কথা বলার ইচ্ছা কিন্তু একদম কম ছিলো না!

কিন্তু ভাগ্যের পরিহাস শুধু দূর থেকে ভালোবেসে দূর থেকে তোমার সম্পর্কে একটি মাত্র শব্দ জেনেছি তোমার নাম নেহা।তবে মনে কষ্ট তোমার পূর্ণ নামটিও জানতে পারিনি।

তোমার নামটি আসলে প্রেমে পড়ার মত,তবে তুমি কিন্তু কম সুন্দরী 

নও!

তোমাকে যে পুরুষ বিবাহ করবে সে অনেক সুখী হবে।যদি সে তোমার মাঝে লুকিয়ে থাকা গুণগুলো বুঝতে পারে।।

তুমি যেখানে থাকো ভালো থেকো নেহা

 

        ইতি

   বোকারাম 

ট্যাগ: banglanewspaper ভালোবাসা