banglanewspaper

সাকিব আল হাসান নিজেই স্বীকার করে নিলেন, আফগানরা তাদের সব বিভাগেই উড়িয়ে দিয়েছে। ম্যাচে হার নিয়ে তাহলে আর কোনো প্রশ্ন কি অবশিষ্ট থাকে? দেরাদুনে রোববার সিরিজের প্রথম টি-টুয়েন্টি ম্যাচে সাকিবের অধিনায়কত্ব নিয়েও আসলে প্রশ্ন উঠছে। বোলার ব্যবহারের ক্ষেত্রে তার সিদ্ধান্তগুলোকে করছে প্রশ্নবিদ্ধ।

এদিন প্রথম চার ওভারেই চার বোলার ব্যবহার করেছেন সাকিব। আধুনিক ক্রিকেটে অবশ্য তা নিয়মিত হচ্ছে। কিন্তু ১৪তম ওভারে প্রথম বল করতে এসে মাহমুদউল্লাহ ২ উইকেট তুলে নেওয়ার পরও এদিন তাকে আর ব্যবহার করলেন না সাকিব। সাকিব বাদে অন্য বোলাররা ছিলেন ব্যয়বহুল। অথচ মাহমুদউল্লাহর বোলিং স্পেল ১-০-১-২।

শেষ দিকে আবু জায়েদ রাহি, রুবেল হোসেন, আবুল হাসান রাজুদের ব্যবহার করে গেলেন। ব্যয়বহুল ওভার করলেন তারা। তাতে আফগানদের স্কোরটা নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬৭ রানে গিয়ে ঠেকে। শেষ চার ওভারে বাংলাদেশ খরচ করে ৬২ রান।

তাই মাহমুদউল্লাহকে আবারো বোলিংয়ে না আনা নিয়ে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হচ্ছে সাকিববে। তবে টাইগার অধিনায়ক পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে নিজের সিদ্ধান্তের পক্ষেই কথা বললেন, ‘এটা কঠিন সিদ্ধান্ত। যদি আমি তাকে আরো এক বা দুই ওভার দিতাম এবং সে কিছু ছক্কা দিত তবে আপনি আমাকে জিজ্ঞেস করতেন কেন তাকে বল দিলাম? কেন নিয়মিত বোলারদের ব্যবহার করলাম না।’

অর্থাৎ সাকিব এই প্রসঙ্গকে গুরুত্বই দিচ্ছেন না। অবশ্য সাকিবের কথাকে উড়িয়ে দেওয়াই বা যায় কি করে। মাহমুদউল্লাহ ব্যয়বহুল ওভার করলে তাকেও হয়তো কাঠগড়ায় উঠতে হতো। কিন্তু ৭ বোলার ব্যবহার করেও যখন আফগানদের আটকাতে পারেন না তিনি, তখন সিরিজের বাকি দুটি ম্যাচ নিয়ে তো শঙ্কা আরো বেশি জাগে। সাকিব অবশ্য সব বিভাগেই নিজেদের উন্নতি প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন।

ট্যাগ: banglanewspaper সাকিব