banglanewspaper

চাঁদপুরে কেন্দ্রীয় মহিলা লীগের সদস্য ও গল্লাক আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শাহীন সুলতানা ফেন্সীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চাঁদপুর শহরের ষোলঘর এলাকায় নিজ বাসভবন থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ও চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়েছে পুলিশ।

পরিবার জানায়, শাহীন সুলতানা ফেন্সীর তিন মেয়ে। দুই মেয়ে দেশের বাইরে এবং এক মেয়ে কুমিল্লায় থাকেন।

নিহতের ভাই নঈম খান জানান, তার বোনের স্বামী অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম পাঁচ বছর আগে আরেকটি বিয়ে করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ লেগে থাকতো। প্রায় সময়ই জহির তার স্ত্রীকে মারধর করতেন। রাতে জহিরুল পারিবারিক কলহের জের ধরে শাহীনকে হত্যা করেন বলে দাবি করেন নঈম।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘরের দরজা খোলা অবস্থায় দেখে ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় শোবার ঘরের খাটের সামনে মেঝেতে তার রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়।

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওয়ালী উল্লাহ ওলি জানান, মাথায় আঘাতের কারণে ফেন্সী নিহত হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তদন্ত শেষে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কারা জড়িত রয়েছে তা জানা যাবে।

ট্যাগ: bdnewshour24 হত্যা