banglanewspaper

নিজস্ব প্রতিবেদক : কমলাপুর রেল স্টিশনে এ যেন জনসমুদ্র। গত ১ জুন থেকে শুরু হওয়া অগ্রিম টিকিট প্রত্যাশী মানুষের যে পরিমাণ ভিড় ছিল এর চেয়ে আজ ৫ জুন টিকিট প্রত্যাশীদের উপস্থিতি ছিল অনেক বেশি। বুধবার (৫ জুন) সকাল ৮ টা বিক্রি শুরু হয়েছে আগামী ১৪ জুনের টিকিট।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের ল‌ক্ষ্যে ঢাকা ছেড়ে যেতে ৫ম দিনের মতো টিকিট সংগ্রহ করতে দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করছেন টিকিট প্রত্যাশীরা। টিকিট কাউন্টারের সামনে থেকে শুরু করে মানুষে এই লাইন গিয়ে ঠেকেছে প্রধান সড়কের কাছাকাছি।

টি‌কিট প্রত্যা‌শিরা গতকাল সন্ধ্যা থেকেই টিকিটের লাইনে দাঁড়াতে শুরু করেন। মানুষের এই টিকিটের লাইন মধ্যরাত বা সেহরির পর আরো দীর্ঘ হয়। আর সকালে তো কমলাপুর রুপ নেয় জনসমুদ্রে। সব মিলিয়ে ১৪ জুনের টিকিট পেতে কমলাপুরে শুধুই মানুষ আর মানুষ যেন সুই প‌রিমাণ জায়গা নেই। টিকিট কাউন্টারের সামনে যেন তিল ধারণের ঠাঁই নেই।

সকাল ৮টা থেকে মোট ২৬টি কাউন্টারে টিকিট দেয়া হচ্ছে। এরমধ্যে মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত কাউন্টার আছে দুইটি। এছাড়া আগামীকাল ৬ জুন দেয়া হবে ১৫ জুনের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট।

টিকিট কাউন্টার থেকে জানানো হয়, একজন যাত্রী সর্বোচ্চ ৪টি টিকিট সংগ্রহ করতে পারছেন। ঈদ উপলক্ষে বিক্রিত টিকিট ফেরতযোগ্য নয়। সুবর্ন এক্সপ্রেস ও সোনার বাংলা ট্রেনে কোনো আসনবিহীন টিকিট ইস্যু করা হবে না। অন্যান্য ট্রেনের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র যাত্রীদের অনুরোধে যাত্রার দিন আসনবিহীন টিকিট ইস্যু করা হবে।
 

ট্যাগ: banglanewspaper কমলাপুর