banglanewspaper

২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। এটা চলতি অর্থবছরের চেয়ে শূন্য দশমিক ৪ ভাগ বেশি। চলতি বছরের বাজেটে জিডিপি ছিল ৭ দশমিক ৪ শতাংশ।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫৩ মিনিটের দিকে বাজেট উপস্থাপন শুরু করেন অর্থমন্ত্রী। এর আগে দুপুর ১২টা ৪৭ মিনিটে সংসদ ভবনের অধিবেশন কক্ষে প্রবেশ করেন অর্থমন্ত্রী। এ সময় তাঁর পাশে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুপুর ১২টা ৫১ মিনিটের দিকে সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে বাজেট উপস্থাপন করার অনুমতি চান। অনুমতির পর তিনি বাজেট উপস্থাপন শুরু করেন। ডিজিটাল পদ্ধতিতে, অর্থাৎ পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে বাজেট উপস্থাপন শুরু করেন অর্থমন্ত্রী। এটি বর্তমান সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের শেষ বাজেট এবং অর্থমন্ত্রীর ব্যক্তিগত ১২তম বাজেট।

চলতি অর্থ বছরের তুলনায় ২৫ শতাংশ আকার বেড়েছে প্রস্তাবিত বাজেটের। এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে করমুক্ত আয়ের সীমায় কোনো পরিবর্তন রাখা হয়নি। ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা আড়াই লাখ থাকছে।

আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের আকার প্রায় চার লাখ ৬৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকা।

প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতির গড়হার ৫ দশমিক ৬ শতাংশ ধরা হয়েছে। যদিও চলতি অর্থবছরের বাজেটে তা ৫ দশমিক ৪ শতাংশ রাখা হয়েছে।

ট্যাগ: banglanewspaper জিডিপি