banglanewspaper

ডেস্ক রিপোর্ট: দেশের তিন জেলায় গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন, যারা সবাই মাদক কারবারে জড়িত বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত এসব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

এর মধ্যে ঠাকুরগাঁও ও রংপুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুইজন এবং দিনাজপুরে মাদক কারবারিদের দুই পক্ষে গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহতের সংখ্যা ১৩৪ জনে পৌঁছাল।

প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে উপজেলার ধর্মগড় ইউনিয়নের ভদ্রেশ্বরী বন্দর গ্রামের চেকপোস্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন রানীশংকৈল থানার ওসি মো. আবদুল মান্নান।

পুলিশের দাবি, নিহত শামীম হোসেন (৪২) রানীশংকৈল উপজেলার ভবানন্দপুর গ্রামের আবদুল সাত্তারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে মাদক আইনের ১১টি মামলা রয়েছে।

ওসি বলেন, ভদ্রেশ্বরী বন্দর গ্রামের জগদলগামী সড়কের চেকপোস্টে মাদক চোরাকারবারিদের জড়ো হওয়ার খবরে পুলিশ বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে সেখানে অভিযানে যায়।

এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি ছোড়ে। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি করে। প্রায় ২০ মিনিট গোলাগুলির পর মাদক ব্যবসায়ীরা পিছু হটে। পরে সেখানে মাদক ব্যবসায়ী শামীম হোসেনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায় বলে ওসি আবদুল মান্নানের ভাষ্য।

শামীমকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান তিনি।

ওসি আরও বলেন, এ অভিযানে পুলিশের দুই সদস্যও আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্র ও ৬৪০টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

রংপুর: রংপুরে নগরীতে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দকযুদ্ধে আবু মুসা বিষকালাই (২৭) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

কোতোয়ালি থানার ওসি বাবুল মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে সিটি কর্পোরেশনের ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের কুকরুল আমেরতল তিন রাস্তার মোড়ে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

নিহত মুসা ওই ওয়ার্ডের হনুমানতলা বস্তির আবদুল কুদ্দুসের ছেলে। তার নামে কোতোয়ালি থানায় মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে ১১টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশের ভাষ্য।

রংপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান বলেন, কুকরুল আমেরতল এলাকায় মাদক কেনাবেচার খবরে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করলে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ঘটনাস্থলেই মুসা মারা যান।

একপর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পিছু হটলে মুসার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয় বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় পিস্তল, তিনটি গুলির খোসা, ১৭৩টি ইয়াবা ও ৫২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধারের কথাও জানিয়েছে পুলিশ।

দিনাজপুর: দিনাজপুরের সদর উপজেলায় এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। দুদল মাদক বিক্রেতার মধ্যে গোলাগুলিতে ওই ব্যক্তি নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছেন দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ওসি রেদওয়ানুর রহিম।

নিহতের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

ওসি বলেন, খাড়িপাড়া এলাকায় গোলাগুলির খবর পেয়ে সেখানে যায় পুলিশ। পরে ঘটনাস্থল থেকে এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ১০০ বোতল ফেনসিডিলও একটি ওয়ান শুটারগান উদ্ধারের কথা জানায় পুলিশ।

ট্যাগ: Banglanewspaper মাদকবিরোধী অভিযান