banglanewspaper

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুষ্টিয়ার চৌড়হাস বড়পুকুর এলাকায় একটি মেহেদী কারখানা বানিয়ে ভারতের নেহা নামক একটি কোম্পানীর মেহেদী তৈরী করা হচ্ছে। যার টিউবের গায়ে হিন্দি এবং ইংরেজীতে লেখা। উৎপাদন প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা রয়েছে ভারতের দিল্লি। আরেকটি ব্যান্ডের মেহেদী এখানে দেখা যায় সেটিতে লেখা রয়েছে আলমাস মেহেদী। যার গায়ে উর্দু এবং ইংরেজীতে লেখা রয়েছে। মেহেদীর উৎপাদন প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা দেয়া হয়ে পাকিস্তান। 

এই ভাবেই তৈরী করা হচ্ছে বিদেশী ব্যান্ডের মেহেদী। শুধু মেহেদী নয় অন্য কসমেটিকসও তৈরী হচ্ছে এই কারখানায়। কারখানার নাম দেয়া হয়েছে ফ্যাশান এ্যাক্টিভ গোল্ড মেহেদী কারখানা। শিশুদের দিয়ে মেহেদী প্যাকেটজাত করা হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে ওই মেহেদী কারখানায় দেখা যায় এলাকার ১০ থেকে ১৪ বছর বয়সী ৬ জন শিশু এবং চারজন মহিলা মেহেদী উৎপাদনে ব্যস্ত। টিভি ক্যামেরা অন করা অবস্থায় কথা হয় ওই কারখানার মালিক মাহাবুবের সঙ্গে। তিনি স্বীকার করেন যে তিনি অন্যায়ভাবে কাজটি করছেন। তার আত্মীয় রয়েছে পুলিশের এক উর্ধতন কর্মকর্তা। তার প্রভাবেই তিনি এই কাজটি করছেন এবং তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষমতা কারোর নেই বলে তিনি হুঁশিয়ারি দেন। 

এদিকে বিষয়টি নিয়ে অধিক অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসেন মাহাবুরের শ্বশুরের গরুর ফার্ম রয়েছে। ওই গরুর ফার্মের সাথে একজন উর্ধতন পুলিশ কর্মকর্তার পার্টনারশীপ রয়েছে। যার দাপটেই মাহাবুব কুষ্টিয়াতে বসে বানাচ্ছেন দিল্লী এবং পাকিস্তানের মেহেদী। 

এ ব্যাপারে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক জহির রায়হান জানান, আমার কাছে কোন খবর নেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ট্যাগ: banglanewspaper কুষ্টিয়া