banglanewspaper

২০১১ বিশ্বকাপে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হয়েছিলেন যুবরাজ সিংহ। গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে দুর্দান্ত খেলেও বিশ্বকাপ ফাইনালে পঞ্জাবতনয়ের আগে ব্যাট করতে নেমে যান মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। 

মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ধোনির দুরন্ত ইনিংস আজও কেউ ভোলেননি। ৯১ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। নুয়ান কুলশেখরাকে গ্যালারিতে ফেলে দিয়ে ভারতকে বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন ধোনি। অথচ সচিনের পরামর্শ না পেলে সেদিনকার ফাইনালে ধোনি হয়তো আগে ব্যাট করতে নামতেন না।

হয়তো যুবরাজ সিংহ ধোনির আগেই ব্যাট করতে নেমে পড়তেন। সচিনের পরামর্শে রাঁচির রাজপুত্র আগে নেমে যান। যুবি নামেন পরে। বাকিটা এখন ইতিহাস। 


কী পরামর্শ দিয়েছিলেন সচিন? ‘হোয়াট দ্য ডাক’ নামে একটি চ্যাট শোয়ে উপস্থিত ছিলেন সচিন এবং বীরেন্দ্র সহবাগ। সেখানেই বীরু ফাইনালের রহস্য ফাঁস করেন। ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে শ্রীলঙ্কা স্কোরবোর্ডে তোলে ২৭৪ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৪৮.২ ওভারে ম্যাচ জিতে নেয়।

ড্রেসিং রুমের সেই গোপন কথা ফাঁস করে সহবাগ বলেন, ‘‘তখন ক্রিজে ব্যাট করছিল কোহলি আর গৌতম (গম্ভীর)। সচিন তখন এমএস-কে বলেছিল, ডান হাতি ব্যাটসম্যান আউট হয়ে গেলে ডান হাতিকেই ব্যাট করতে পাঠিও। আর বাঁ হাতি ফিরে গেলে বাঁ হাতিকে পাঠাতে হবে। ঠিক তখনই বিরাট কোহলি আউট হয়ে যায়।

কোহলি ফিরে যেতেই সচিনের পরামর্শ অনুযায়ী ধোনি নেমে যায় ব্যাট করতে।’’ এই কারণেই গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে ভাল ফর্মে থাকা সত্বেও যুবির আগে ব্যাট করতে নেমে পড়েন ধোনি। রাঁচির রাজপুত্র নেমে ভারতকে জিতিয়ে তবেই ফেরেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 বিশ্বকাপ ফাইনাল