banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, গাজীপুর (গাজীপুর): গাজীপুরের শ্রীপুরে উপজেলার রাজাবাড়ি ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুর-লোহাগাছিয়া আঞ্চলিক সড়কের কয়েকটি স্থানে বিটুমিনের কার্পেটিং করার কাজ শেষ হতে না হতেই তা উঠতে শুরু করেছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এমন নিন্মমানের কাজ নিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। পরে উত্তেজিত এলাকাবাসীর প্রতিবাদ আর ক্ষোভের মুখে কাজ বন্ধ করতে বাধ্য হয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। খবর পেয়ে রোববার সকালে উপজেলা প্রকৌশলী সুজায়েত হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। 

স্থানীয়রা জানান, রাজাবাড়ি ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুর-লোহাগাছিয়া আঞ্চলিক সড়কের ৪ কি.মি দৈর্র্ঘ্যরে সড়কটির সংস্কার কাজ চলছিল। গত বৃহস্পতিবার ওই সড়কের কাঁচারিপাড়া এলাকায় বিটুমিনের পিচ কার্পেটিং কাজ করা হয়। পরে শনিবার কাঁচারিপাড়ায় এলাকায় বিটুমিনের পুরুত্ত্ব কম হওয়ায় বেশ কয়েকটি স্থানে বিটুমিনের পিচ কার্পেটিং উঠতে থাকে। গতকালও আরো কয়েক স্থানে পিচ কার্পেটিং উঠে যায়। এমন নিন্মমানের কাজে এলাকাবাসিরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। পরে স্থানীয় জনগণের  বিক্ষোভের মুখে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি কাজ বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়।

উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, রাজেন্দ্রপুর-লোহাগাছিয়া সড়কের মোট ৪হাজার ৮’শ ৭৫মিটার (৪.৮৫কিলোমিটার) সংস্কার করার অনুমোদন পায় ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। এর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ১ কোটি ২৭লাখ ৮৪হাজার ৮শ টাকা। কাজ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সেলিম সরকারের মালিকানাধীন রিফাত এন্টারপ্রাইজ। এ বছরের ফেব্রুয়ারী থেকে শুরু হয়ে মে মাসেই শেষ করার কথা থাকলেও আবহাওয়াজনিত কারণে নির্দিষ্ট সময়ে তা শেষ করা যায়নি। গত শনিবার পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার কাজ সম্পন্ন হয়।

স্থানীয় মাসুদ রানা মিলন বলেন, বৃহস্পতিবার ওই রাস্তাটিতে পিচ কার্পেটিং দিয়ে যাওয়ার দুই দিনের মাথায় তা উঠে যাচ্ছে। এমন নিম্নমাণের কাজ দেখে স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদের কাজ বন্ধ রাখতে চাপ দেয়। পরে খবর পেয়ে উপজেলা প্রকৌশলী এসে কাজ পরিদর্শন করেন। 

রাজাবাড়ি ইউপি’র ৭নং ওয়ার্ড সদস্য মোহাম্মদ আলী শেখ বলেন, শনিবার ও রবিবার বেশ কয়েকটি স্থানে কার্পেটিং পিচ উঠে গেছে দেখে এলাকাবাসি ক্ষোভ প্রকাশ করে। নিন্মমানের কাজের ভিডিও ভাইরাল হলে  তা দেখে বাকি কাজ বন্ধ করে দেয় স্থানীয় লোকজন।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রিফাত এন্টারপ্রাইজ এর মালিক সেলিম সরকার জানান, আমাদের কাজের কোনো গাফিলতি হয়নি। বিটুমিন গরম করার সময় হঠাৎ বৃষ্টির কারনে এমনটি হয়েছে। প্রয়োজনে আবারো আমরা এ কাজ করে দিবো।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী সুজায়েত হোসেন জানান, খবর পেয়ে আমি রোববার ওই স্থানে গিয়ে পিচের কার্পেটিং পুরুত্ত পরিমাপ করে দেখেছি সব ঠিক আছে ।এছাড়াও কাজের মান সম্পুর্নই ঠিকই ছিল। তবে রাস্তার অবস্থা কেন এমন হলো তা তদন্ত করে দেখতে  হবে।
 

ট্যাগ: banglanewspaper শ্রীপুর