banglanewspaper

সৈকতে আছড়ে পড়া বিশাল বিশাল ঢেউ, বিস্তীর্ণ বেলাভূমি, সারি সারি ঝাউবন, দিগন্তে জলরাশি ভেদকরে রক্তবর্ণের থালার মতো সূর্য। এটা আর কোথাও না এটা মিলবে কক্সবাজারেই।

কক্সবাজার যাওয়ার ইচ্ছাটা কম বেশি সবারই থাকে কিন্তু বাড়তি খরচ এবং সময় স্বল্পতার কারনে অনেকেই ইচ্ছে হলেও যেতে পারেন না।

ভ্রমনের প্রয়োজনীয় তথ্যঃ

ঢাকা থেকে সৌদিয়া, এস আলম , হানিফ এন্টারপ্রাইজ, শ্যামলী পরিবহন, সোহাগ পরিবহন, মডার্ন লাইন, শাহ্ বাহাদুর, সেন্টমার্টিনসহ বিভিন্ন বাসে সব সময় আসা যাওয়া করা যায়। ভাড়া পড়বে ৭০০ টাকা থেকে ৮৫০ টাকার মধ্যে।যদি ট্রেনে যেতে চান, তাহলে কমলাপুর থেকে উঠতে হবে।

কক্সবাজারঃ

সকালে গাড়ি থেকে নেমে যেকোনো একটা ৩ তারকা হোটেলে উঠতে পারেন ভাড়া পড়বে ১ রুম (ডাবল) ১০০০টাকা যেহেতু এখন অন সিজন তাই ভাড়া একটু বেশিই পড়বে ।

১। ফ্রেশ হয়ে হাল্কা নাশতা করে নেমে যেতে পারেন সমুদ্রে তবে নামার আগে অবশ্যই জোয়ার ভাঁটার সময় জেনে নিবেন।

২। তারপর হোটেল এ এসে কাপড় পরিবর্তন করে শৈবাল সুইমিং পুল এ যেতে পারেন ।জন প্রতি ১৫০ টাকা লাগবে প্রবেশ মূল্য।

৩। দুপুরের খাবার যেকোনো বাংলা হোটেল থেকেই খেতে পারেন খুবই কম খরচে।

৪। বিকেল বেলা ঘুরতে পারেন কেনাকাটা করার জন্য । কম টাকায় কেনাকাটা করতে চাইলে আপনাকে যেতে হবে বার্মিজ মার্কেটে । ব্যাটারি চালিত রিকশায় গেলে যাওয়ার ভাড়া পড়বে ২০ টাকা ।

৫। রাতের বেলা সমুদ্র পাড়ে বসে কাটাতে পারেন আর শুনতে পারেন সমুদ্রের শো শো গর্জন ।বসে থাকার জন্য চেয়ার ভাড়া করা প্রতি ঘণ্টা মাত্র ২০ টাকা ।

৬। পরের দিন সকালে সূর্যোদয় দেখতে চাইলে খুব ভোরেই আপনাকে যেতে হবে সমুদ্র পাড়ে।

৭। সকাল বেলার নাশতা টা খুব কম খরচে করতে পারেন যেকোনো বাংলা হোটেল থেকেই । রিটার্ন টিকেট কেটে হোটেলে এসে সকাল সকাল বেরিয়ে পড়তে পারেন হিমছড়ি, ইনানির উদ্দেশে।

তবে যাবার আগে অবশ্যই হোটেল চেক আউট করে যাবেন আর ব্যাগপত্র লবিতে রেখে যেতে পারেন। ফিরে এসে নিতে পারবেন, এই জন্য আপনাকে কোন টাকা পয়সা দিতে হবে না ।

হিমছড়ি , ইনানীঃ 

কক্সবাজার শহর থেকে ইনানীর দূরত্ব মাত্র ২২ কিলোমিটার। খোলা জীপ, রিকশা কিংবা ব্যাটারী চালিত রিকশাতে করে সেখানে যাওয়া যাবে। খোলা জীপে গেলে জনপ্রতি ভাড়া ১৫০-১৭০ টাকা পড়বে। রিজার্ভ নিলে এটি পড়বে ১২০০ -১৫০০টাকা।রিকশা করে যেতে হলে ভাড়া লাগবে ৩০০-৪০০ টাকা। আর সি এন জি নিয়ে গেলে আসা যাওয়ার ভাড়া পড়বে ৫০০-৬০০টাকা। সৈকত লাগোয়া আকাশ ছোঁয়া পাহাড় এর সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন যাওয়ার পথেই।

যাত্রা পথেই কক্সবাজার শহর থেকে মাত্র ১২ কিলোমিটার আসলেই পাবেন হিমছড়ি । উপভোগ করতে পারবেন পাহাড়ের হিম শীতল ঝরণা।

হিমছড়ি পাড় হয়ে আরও ৮কি.মি গেলেই আপনি পৌছে যাবেন ইনানী, যাকে বলা হয়, মিনি সেন্টমার্টিন। উপভোগ করতে পারবেন বিস্তীর্ণ পাথুরে সৈকত। সমুদ্র থেকে ভেসে এসে প্রচুর প্রবাল বেলাভূমিতে জমা হয়েছে । বিচে চলার উপযোগী চার চাকার বেশ কয়েকটি বাইক সৈকতে চলাচল করে। ১ কিলোমিটার দূরত্বে ভ্রমণ করতে রাউন্ড প্রতি ৫০ টাকা করে দিতে হবে আপনাকে।

কক্সবাজার শহরে ফিরে আপনি হোটেল থেকে ব্যাগ পত্র বুঝে নিয়ে বিকেল এর সময়টা কেনা কাটা করতে পারেন অথবা সমুদ্র পাড়ে চেয়ার ভাড়া করে শেষ সময় টা সূর্যাস্ত দেখতে পারেন গাড়ির সময় এর আগ পর্যন্ত।

ট্যাগ: banglanewspaper কক্সবাজার হিমছড়ি ইনানী