banglanewspaper

ডেস্ক রিপোর্ট: জেলবন্দি প্রেমিককে অপরাধের কাজে সাহায্য করত কলেজছাত্রী সুস্মিতা মালাকার। প্রেমিক ভগীরথের সঙ্গে ফেসবুকে আলাপ হয় সুস্মিতার। এমনকি খুনের ঘটনাতেও নাম জড়িয়েছে তার। ওই খুনের ঘটনাতে অভিযুক্ত ভগীরথও। বাইরে থেকে খবরাখবর সংগ্রহ করে জেলবন্দি প্রেমিকের কাছে পৌঁছে দিত সুস্মিতা।  কলেজছাত্রী সুস্মিতার ব্যাপারে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে পুলিসের হাতে।

রোগা-পাতলা চেহারা। পরনে জিন্স-টিশার্ট। বছর একুশ বয়স, চোখ-মুখ নিষ্পাপ। কিন্তু এই তরুণীই যে খুন, মাদক পাচার সহ একাধিক ঘটনায় জড়িত।  সেন্ট্রাল জেলে প্রেমিককে মাদক পাচার করতে গিয়ে ধরা পড়ে যায় সুস্মিতা নামে ওই কলেজছাত্রী। পুলিস জানিয়েছে, ভারতের দমদম সেন্ট্রাল জেলে বেশকিছু দিন ধরে বন্দি ওই ছাত্রীর প্রেমিক ভগীরথ সরকার।

অন্যদিকে শহরেরই একটি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সুস্মিতা। ফেসবুকেই ভগীরথের সঙ্গে আলাপ, তার থেকে প্রেম। ভগীরথের হাত ধরেই অন্ধকার জগতে প্রবেশ সুস্মিতার।

পুলিসের খাতায় এর আগেও নাম ছিল বছর এই ছাত্রীর। এমনকি খুনের অভিযোগও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। ভগীরথকে জেলের বাইরে থেকে বিভিন্ন খবরাখবর পৌঁছে দিত সে।

মঙ্গলবার ভগীরথকে জেলে হেরোইন দিতে গিয়েই ‘খেল খতম’ হয় সুস্মিতার। কারারক্ষীদের হাতে ধরা পড়ে যায় সে। ধৃত ছাত্রীকে দমদম থানার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এরআগেও কোনওভাবে জেলের মধ্যে হেরোইন পাচার চলত কিনা তা তদন্ত করে দেখছে পুলিস।

ট্যাগ: banglanewspaper ফেসবুকে ভালোবাসা