banglanewspaper

নুরকাদের সরকার ইমরান-নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীতে ঈদের আনন্দ পরিনত হলো বিষাদে। ঈদের আনন্দ করতে ঈদুল ফিতরের পরের দিন স্বপ্নপূরী থেকে ফেরার পথে রবিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে নীলফামারীর সৈয়দপুরের বাইপাস সড়কে ঢাকাগামী কোচের ধাক্কায় পিকআপে থাকা ৯জন তরুন ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছেন। এছাড়া গুরুত্বর আহত ৮জনকে রংপুর ও সৈয়দপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন সদর উপজেলার চওড়া বড়গাছা ইউনিয়নের নতিবাড়ী গ্রামের মকবুল হোসেনর ছেলে রুবেল ইসলাম(২৮),জাবেদ আলীর ছেলে শামীম(২০),আনারুল ইসলামের ছেলে রাব্বী(১৪),রবিয়ার রহমানের ছেলে,খায়রুল ইসলাম(১৪),আব্দুর রশিদের ছেলে ডালিম(১৯),হাফিজুল ইসলামের ছেলে,মাজেদুল ইসলাম(২০),আরাজি দলুয়া গ্রামেরআব্দুল হান্ননের ছেলে ময়নুল(২০),গোড়গ্রাম ইউনিয়নের ধোবাডাঙ্গা গ্রামের সুবাস চন্দ্র রায়ের ছেলে বিধান চন্দ্র রায়(২৫) ও টুপামারী ইউনিয়নের কিষামত দোগাছি গ্রামের মাহবুবর রহমানের ছেলে মিজানুর রহমান(২০)। দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত ৫জন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং ৪জন সৈয়দপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।নিহতদের লাশ সোমবার পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ওইদিন বিকালে জেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে নিহত ৯ পরিবারের মাঝে প্রত্যেককে ২০হাজার টাকা এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গুরুতর আহতদেরকে ১০হাজার করে টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়। 

ঈদের আনন্দ করতে ঈদুল ফিতরের পরের দিন স্বপ্নপূরী থেকে ফেরার পথে রাত সোয়া ১০টার দিকে নীলফামারীর সৈয়দপুরের বাইপাস সড়কে ঢাকাগামী কোচের ধাক্কায় পিকআপে থাকা ৯জন তরুন ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছেন। নীলফামারী সদর উপজেলার চওড়া বড়গাছা ইউনিয়নের নতিবাড়ী গ্রামের একদল তরুন ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে রবিবার সকালে পিকআপ (নীলফামারী-ন-১১-০০০৭) ভাড়া করে বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করে সর্বশেষ দিনাজপুরের স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পটে যায়। সেখান হতে তারা নিজ এলাকায় ফিরছিল। পথে রাত সোয়া ১০টার দিকে সৈয়দপুরের বাইপাস সড়কে ধলাগাছ এলাকায় একটি ঢাকাগামী কোচ ওই পিকআপটিকে  ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই আট জন ও হাসপাতালে নেয়ার পথে একজন সহ ৯জন নিহত হয়।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আটজনের লাশ উদ্ধার করে। একজনের মরদেহ সৈয়দপুর হাসপাতালে রয়েছে। আহত ১২ জনকে সৈয়দপুর সরকারি ১০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।পরে আহতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে দেয়। তাঁদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

এ ঘটনায় ওই রাতেই নীলফামারী জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খালেদ রহীম,পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন, সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. বজলুর রশিদ, সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন।এদিকে সোমবার দুপুরের পর চওড়া বড়গাছা ইউনিয়নের নতিবাড়ী গ্রামে নিহতদের দাফন সম্পন্য করেছে তাদের পরিবার। গ্রামজুড়ে চলছে শোকের মাতম।

ট্যাগ: banglanewspaper নীলফামারী