banglanewspaper

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ ও গলা কাটা এলাকা নামে পরিচিত ছিলো নওগাঁ জেলার রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলা। সেই সময় এই দুই উপজেলা ছিলো সর্বহারা ও জেএমবিদের ঘাটি।

ঈদকে কাজে লাগিয়ে সেই নওগাঁ-৬ (রাণীনগর-আত্রাই) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে ৬ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা এক কাতারে জমায়েত হয়ে আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন এই দুই উপজেলার আমজনতার সঙ্গে। দাঁড়িয়ে গনসংযোগ করছেন। তারা বলছেন আমাদের মধ্যে প্রার্থী যেই হোক নৌকায় দিব ভোট।

জাতীয় নির্বাচনের আর মাত্র কয়েক মাস বাঁকী। এরই মাঝে ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টারে ঢেকে দেওয়া হয়েছে পুরো রাণীনগর-আত্রাইয়ের শহর ও গ্রামকে। এবার ঈদে মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীগন কেহ ঈদ কার্ড, কেহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, কেহ নির্দিষ্ট স্থানে দাওয়াত দিয়ে, কেউবা বাড়ী বাড়ী গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন। তবেও বর্তমান এমপি মো: ইসরাফিল আলমও মাঠে রয়েছেন। তিনি এলাকায় প্রতি বারের ন্যায় ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। 

নতুন করে আওয়ামী লীগ থেকে আরও ৬ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থী এক সঙ্গে দুই উপজেলার সদরসহ বিভিন্ন বাজারে, গ্রামে গঞ্জে নৌকার পক্ষে ভোট চাইতে দেখা যাচ্ছে। তাদের কাছে ভোটারেরা জানতে চাচ্ছেন আপনারা এক সঙ্গে ছয় জন ভোট চাইছেন আপনাদের মধ্যে প্রার্থী কে? তখন তারা ভোটারদের বলছেন আমাদের ছয় জনের মধ্যে প্রার্থী যেই হোক আমরা তার পক্ষে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করব ইনশাল্লাহ।

নতুন ৬ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রর্থীরা হলেন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: নওশের আলী, আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো: নাহিদ ইসলাম বিপ্লব, সাবেক এমপি ওহিদুর রহমানের ছেলে নওগাঁ জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড: ওমর ফারুক সুমন, রাণীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও রাণীনগর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মো: আনোয়ার হোসেন হেলাল, নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও রাণীনগর উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক মো: রেজাউল ইসলাম, নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যা ও রাণীনগর উপজেলাধীন ৬ নং বড়গাছা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মো: আব্দুর রহমান।

ছয় নেতাকে এক হতে দেখে দুই উপজেলার মানুষের মাঝে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। কেউ কেউ আওয়ামী লীগের মাঝে বিভক্ত হওয়ার ঘটনায় বলছেন নানা কথা। কেন এমন হলো এটাই প্রশ্ন সাধারণ মানুষদের।

কিন্তু কে পায় এবারের নৌকা প্রতীক তাই শুধু দেখার অপেক্ষায় এই দুই উপজেলার সাধারণ আমজনতারা। এই নিয়ে চলছে দুই উপজেলার সর্বত্র আলাপ-আলোচনা। কি লিখা রয়েছে এই আসনের কপালে? কি হতে পারে ভবিষ্যতে।

ট্যাগ: banglanewspaper নওগাঁ-৬ গনসংযোগ