banglanewspaper

 

স্বপ্ন

সৈয়দা কুমকুম খায়ের   

রাতের আঁধারে দেখে যে সপ্ন, 

 দিনের আলোতে তাহা, পূর্ণ হয় কখনো?

 

দাদার স্বপ্ন, হবে ডাক্তার,

ছোট বেলা থেকে, শুনেছে  লক্ষ বার,

         বারো বছর ধরে,সে সপ্ন নিজে,

        করেছে ধারন, অন্তরের মাঝে।।    

      

মেডিকেল এর পরীক্ষা, হয়েছে ভালো, 

ইন্জিনিয়ারিং  এর প্রশ্ন, কেমন হয় বল?           

সেই প্রশ্নের জবাব খুজিতে,             

দেওয়া  হলো পরীক্ষা শুধুই মিছে।।    

 মেডিকেলের ভর্তি যুদ্ধে,                                         

হেরে গেলো সে নিজে।                   

বুয়েটে যে কি ভাবে,                                       

পেয়ে গেলো ঠাঁই  শেষে।  

 দাদার সপ্ন হলো না পূর্ণ,                         

বিধাতা লিখেছেন সম্পূর্ণ  ভিন্ন।

 

বাবার সপ্ন, সম্প্রদান করিবে কন্যারে,

ধন-সম্পদে পূর্ণ, কৃতী  সন্তানেরে,

সন্তানতো খুজিয়া পাইলো শেষে,

পাইলোনা শুধু চরিত্রখান অবশেষে।

 

 এ কেমন সপ্ন,করিলো পূর্ণ,

পূর্ণোর মাঝে বিধাতা,রেখেছেন অসম্পূর্ণ।

 

মায়ের সপ্ন,পুত্র আমার, করিবে জীবনপূর্ণ।

তাহারে লইয়া জীবন আমার শেষ পর্যন্ত হবেই ধন্য।

 

মায়ের সপ্ন করিতে পূর্ণ, পুত্র রইলো অটল সম্পূর্ণ। 

মায়ের সপ্ন পূর্ণ করিতে,পুত্র  ছুটে রাস্তা ঘাটে।

 

ছুটতে গিয়ে রাস্তার মাঝে,হোচঁট খেলো পুত্র  নিজে,

মাতা তার আছে বেঁচে, পুত্র গেলো না ফেরার দেশে।

 

হলো কি পূর্ণ, মায়ের সপ্ন? 

বিধাতার গড়া এই পৃথিবীতে।

গড়িবে যদি সপ্ন নিজে,

কেন দেখালে সপ্নো, সৃষ্টির মাঝে?

সপ্ন পূরণ করিতে নিজে,

চাইতে হবে স্রষ্টার কাছে,

 

        যিনি লিখেছেন সপ্ন নিজে,

        সমস্ত সৃষ্টির অন্তরালে বসে।

 

                         

ট্যাগ: banglanewspaper স্বপ্ন