banglanewspaper

বাগেহরহাট প্রতিনিধি: বরিশাল ও ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির দন্দে গত তিন দিন ধরে বন্ধ রয়েছে খুলনা-বরিশাল রুটে বাস চলাচল। এর ফলে এই রুটে চলাচলকারী যাত্রীদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বাগেরহাট আন্তঃজেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস মালিক সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ৭টি বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই রুটে বাস চলাচল বন্ধের ঘোষনা দেন। 

বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ জানান, খুলনার রুপসা থেকে সরাসরি বরিশালে ধানসিড়ি নামক যাত্রীবাহী পরিবহন চলাচল করে। ঝালকাঠি বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির চাঁদা দাবি, অযৌক্তিক চাহিদা এবং মাঝ পথে যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে ভোগান্তি সৃষ্টি করেই চলছে। নানা ভাবে চেষ্টা করেও এর কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

শনিবার দুপুরে বাগেরহাট কেন্দ্রীয় বাস ষ্টান্ডে বরিশাল যাওয়ার জন্য আসা যাত্রী সোহাগ আহম্মেদ জানান, এই রুটে বাস চলাচল বন্ধ হওয়ায় তার মতো অনেক যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। বাস মালিক সমিতির দন্দের কারনে সাধারন জনগনের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। তিনি জনগনের দূর্দশা লাঘবে সরকারের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বাগেরহাট আন্তঃ জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি শনিবার দুপুরে বলেন, ঝালকাঠি বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির অযৌতিক চাঁদাসহ নানা ধরনের হয়রানীর কারনে এক প্রকার নিরুপায় হয়ে বাস চলাচল বন্ধ রাখতে হয়েছে।

জনভোগান্তি কথা স্বীকার করে তিনি আরো বলেন, বিষয়টি নিয়ে বরিশাল অঞ্চলের আওয়ামী লীগের দুইজন প্রভাবশালী নেতা আমির হোসেন আমু ও আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ উদ্যোগ নিলে সমস্যার সমাধান হবে। 

ট্যাগ: banglanewspaper খুলনা-বরিশাল যাত্রী ভোগান্তি