banglanewspaper

চার দিকে পাহাড়, মাঝে এক উপত্যকা। উপত্যকা দিয়ে বয়ে যাওয়া গিলগিট ও হাঞ্জা নদীর সংযোগস্থলে গড়ে ওঠে পাকিস্তানের গিলগিট শহর। এক সময়ে সিল্ক রুটের এক প্রধান কেন্দ্র ছিল উত্তর পাকিস্তানের এই শহর।

বর্তমানে গিলগিটের নাম সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছে সম্পূর্ণ এক অন্য কারণে। ২০ জুন প্রথমবার পাকিস্তানের এক যাত্রীবাহী বিমান পরিচালনা করলেন নারীরা। তারা হলেন ক্যাপ্টেন মরিয়ম মাসুদ ও ফার্স্ট অফিসার শুমাইলা মাজহার। বিমানের ক্রু-মেম্বাররাও সকলেই ছিলেন নারী।

গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ইসলামাবাদ থেকে গিলগিট হয়ে আবারও দেশের রাজধানী শহরে ফিরে আসা— কোনও রকম বাধা বিপত্তি না ঘটিয়েই।

প্রসঙ্গত, গিলগিট পৌঁছতে ও বিমান অবতরণ করতে যে পাহাড়ি পথের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়, তা যে বেশ ঝুঁকিপূর্ণ, এমনটা স্বীকার করেছে ‘পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারসাইনস’ (পিআইএ)। সংস্থার তরফ থেকে একটি টুইটেই এমন বার্তা দেওয়া হয়।

টুইটারের সেই পোস্ট বর্তমানে ছাড়িয়েছে ৩৭ হাজার লাইক। অনেকেই কমেন্ট করেছেন যে, তাঁরাও চান বড় হয়ে তাঁদের মেয়ে এমন সম্মানজনক কাজ করুক।

ট্যাগ: বিমানবন্দর পাক তরুণী