banglanewspaper

কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি: নেত্রকোণার কেন্দুয়া থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এস আই) নুরুল আমীনকে থানা থেকে প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন কেন্দুয়া পৌরসভার মেয়র এবং কেন্দুয়া শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আসাদুল হক ভূইঁয়াসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

বৃহস্পতিবার নেত্রকোণা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) শাহজাহান মিয়া কেন্দুয়া থানায় পরিদর্শনে এলে এস আই নুরুল আমীনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরে মেয়র আসাদুল হক ভূইঁয়াসহ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা প্রত্যাহার দাবী জানায়।

সূত্র জানায়, কেন্দুয়া পৌরসভার এক কমিশনারের কলেজ পড়–য়া কন্যাকে ৯নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন ছেলের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ ওঠে। এই বিষয়টি জানতে পৌর মেয়র আসাদুল হক ভূইঁয়া পৌর এলাকা সাজিউড়া মোড়ে পপুলার ডায়গনেষ্টিক সেন্টারে ডেকে আনেন ছেলে বাবা ইসলাম উদ্দিনকে। মেয়রের সাথে কথা বলার এক ফাঁকে ইসলাম উদ্দিন বাহিরের দোকানে পান খেতে গেলে কেন্দুয়া থানা এস আই নুরুল আমীন তাকে ধরে থানায় নিয়ে যায় থানায়। খবর পেয়ে মেয়র তাৎক্ষণিক থানায় ছুটে যায় গিয়ে ইসলাম উদ্দিনকে ছাড়িয়ে আনেন। এসময় উভয় পক্ষ তর্কে জড়ায়। মেয়রের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণে ক্ষিপ্ত হয় শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারাসহ আওয়ামী লীগ,যুবলীগসহ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার উপজেলা সদরের সাথে সংযোগ সড়কগুলোতে দুপুর পর্যন্ত ইঞ্জিল চালিত সিএনজি ও অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ রেখে প্রতিবাদ জানায় শ্রমিক নেতারা। খবর পেয়ে  বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার দিকে কেন্দুয়ায় ছুটে আসেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) শাহজাহান মিয়া। উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে এস.আই নুরুল আমীনতে প্রত্যাহারের আশ্বাসে শ্রমিক ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয় শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা। এদিকে বুধবার রাতেই ওই কমিশনার বাদী হয়ে ইসলাম উদ্দিনসহ ছেলে তন্ময় হাসান ঝুটন (২২) ও স্ত্রীর বিরুদ্ধে অপহনের মামলা রুজু করেছেন।

পৌর মেয়র আসাদুল হক ভূইঁয়া বলেন, আওয়ামী লীগ নেতা ইসলাম উদ্দিনকে তার পারিবারিক বিষয়ে কথা বলতে পৌরশহরের সাজিউড়া মোড়ে নিউ পপুলার ডায়াগনাস্টিক সেন্টারে ডেকে আনি। কথা বলার এক ফাঁকে ইসলাম উদ্দিন পাশের দোকানে পান খেতে গেলে তাকে ধরে নিয়ে যায় এস.আই নুরুল আমীন। ইসলাম উদ্দিনকে সামাজিকভাবে হেয় করতে এস আই নুরুল আমীন এই কান্ড ঘটিয়েছে বলে জানান তিনি।

এস আই নুরুল আমীনের বিরুদ্ধে আরো বহু অভিযোগ রয়েছে এইগুলো লিখিতভাবে উধ্বর্তন কতৃপক্ষকে জানানো হবে জানিয়ে মেয়র আরো বলেন, তাকে প্রত্যাহার করা না হলে রোববার থেকে নুতুন কর্মসূচি দেয়া হবে। এ ব্যাপারে এস.আই নুরুল আমীন গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন,কমিশনারের মেয়েকে অপহরণে অভিযোগ ছিল ইসলাম উদ্দিনের ছেলে বিরুদ্ধে। ওসি স্যারের পরার্মশে ইসলাম উদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসছিলাম। এব্যাপারে ওসি ইমারত হোসেন গাজী গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন,মেয়রের সাথে ভূল বোঝাবোঝি বিষয়টি সমাধান হয়েছে। তবে প্রত্যাহারের বিষয়টি সিদ্ধান্ত নেবেন উর্ধ্বতন কতৃপক্ষ।
 

ট্যাগ: banglanewspaper কেন্দুয়া