banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর): পাশেই একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। স্কুলে আসার পরপরই কোমলমতি শিশুরা মুক্ত বাতাশে থাকার কথা কিন্তু  সেখানে পাওয়া যায় গলিত সীসার কালো ধোঁয়া। অনেক শিশুই এতে শারীরিক অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে বলে জানায় স্কুলের প্রধান শিক্ষক।

গাজীপুরের শ্রীপুরে গেলি ইন্ডাষ্ট্রিজ লি: নামক একটি ব্যাটারি কারখানায় অনুমোদনহীন ভাবে বিষাক্ত সীসা গলানোর কারণে কালো ধোঁয়ায় প্রায় অধিকাংশ লোক বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

প্রশাসনের কাছে বিভিন্ন সময় অভিযোগ দায়ের করলেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেনা বলে জানায় এলাকাবাসী। নিরুপায় হয়ে এটা বন্ধের দাবীতে  সর্বশেষ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

কারখানাটির সংলগ্ন কেওয়া পূর্ব খন্ড সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন আক্তার ৭ জুলাই রোববার সকালে এ অভিযোগ দায়ের করেন। 
স্থানীয় বাসীন্দা ও অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, ওই ব্যাটারি কারখানা দীর্ঘদিন ধরে নিয়ম বহির্ভূত ভাবে দিনরাত সীসা গলিয়ে পরিবেশ নষ্ট করার ফলে এলাকার স্কুলের বাচ্চাসহ স্থানীয়রা শ্বাসপ্রশ্বাস জনিত সমস্যাসহ বিভিন্ন রোগে ভোগছিল। ইতিপূর্বে কয়েকবার কারখানাটি বন্ধের দাবীতে স্থানীয়রা বিক্ষোভ করলেও প্রশাসনের নিরব ভূমিকায় ব্যাটারি উৎপাদন অব্যাহত থাকে।

স্থানীয়রা আরো অভিযোগ করেন, এরকম আবাসিক এলাকায় অনুমোদনহীন ভাবে ব্যাটারির কারখানার বিষাক্ত সীসা গলানোর কারণে কালো ধোঁয়ায় প্রায় অধিকাংশ লোক বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় কারখানাটি তাদের অবৈধ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

অভিযোগকারী প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন আক্তার জানান, স্কুলের কোমলমতি শিশুসহ স্থানীয়দের ভবিষ্যত মঙ্গলের কারণে ও দূষনমুক্ত পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছি। প্রশাসনিক ভাবে কোন ব্যবস্থা না হলে স্থানীয় লোকজন নিয়ে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবো। 

এ ব্যাপারে গাজীপুর জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক গোলাম কিবরীয়া জানান, গেলি ইন্ডাষ্ট্রিজের কোন পরিবেশ ছাড়পত্র নাই। এমনকি এই কারখানার কোন অনুমোদনও নাই। এগুলো ছাড়া কিভাবে কারখানা তৈরি করেছে তা খতিয়ে দেখা হবে। 

গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির জানান, অভিযোগের বিষয়ের ভিত্তিতে পরিবেশ অধিদপ্তরকে অবহিত করা হয়েছে। তদন্ত টিম গঠন করে দ্রুত প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। 

ট্যাগ: Banglanewspaper শ্রীপুর মুক্ত নিশ্বাস