banglanewspaper

মোঃ নাছির উদ্দিন, কক্সবাজার: কক্সবাজারের রামুতে সালিশ বৈঠক চলাকালে সন্ত্রসীদের ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে রমিজ আহমদ নামে সেচ্ছাসেবক লীগ এক নেতাকে। সোমবার(০২ জুলাই) উপজেলার উত্তর মিঠাছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মাগরিব নামাযের পরপরে তার নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে। নিহত রমিজ আহমদ (৪২) রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি দক্ষিণপাড়া এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে।

উল্লেখ্য যে, রোববার(০১ জুলাই) রাত ৮টার দিকে রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি আশকরখিল কালুর দোকান স্টেশনে সালিশ বৈঠক চলাকালে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে রমিজ আহমদ খুন হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুস ছালাম কালু ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাতে স্থানীয় কালুর দোকান নামক স্টেশনে ইটভাটা মালিক আবদুল্লাহ কোম্পানির সঙ্গে ও দিল মোহাম্মদ নামের এক ইটভাটার মাঝির আর্থিক বিরোধ নিরসনে বৈঠকটি বসে। এতে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রমিজ আহমদ। ওই বৈঠকে রামুর উত্তর মিঠাছড়ি উত্তর পাড়া এলাকার নজির আহমদের ছেলে মুবিন (২২) ও রমিজ আহমদ (২৫) সহ কয়েকজন দুর্বৃত্ত ছুরি নিয়ে এসে তাৎক্ষনিক রমিজ আহমদকে ছুরিকাঘাত করে।

তাকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

রামু থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ছানা উল্লাহ জানান, ওই এলাকায় একটি ইটভাটার লেনদেন সংক্রান্ত সালিশ বৈঠক চলছিল। সেখানে ২ যুবক এসে রমিজ আহমদকে ছুরিকাঘাত করে।এতে রমিজ আহমদের মৃত্যু হয়।

রামু থানার (ওসি তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, তাদের মধ্যে আগে থেকেই বিরোধ ছিল। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাতেই সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত রমিজ আহমদ বিগত ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরজয় হয়। ওই নির্বাচনে হামলাকারী মুবিন ও রমিজ আহমদের বড় ভাই যুবলীগ নেতা ইউনুসও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজয় হন।

এ বিষয়ে রামু উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিকের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, নিহত রমিজ আহমদ জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক ছিল। সে দলের জন্য নিবেধিত প্রাণ ছিলেন। আমরা হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করছি।
 

ট্যাগ: banglanewspaper রামু