banglanewspaper

‘আমি স্বেচ্ছায় গাড়িটি রাস্তায় রেখে গেলাম। কিন্তু আমি গাড়িটির আমদানিকারক নই। আমদানিকারককে আইনের আওতায় নেয়ার জন্য শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের নিকট বিনীত অনুরোধ রইল।’ 

এভাবে উপরের বাক্যগুলো দিয়ে একটি চিরকুট লিখে সেটি টয়োটা ল্যান্ডক্রজার ভি-৮, সিসি-৪৬০৮ মডেলের একটি গাড়ির ভেতরে ফেলে রাখা হয়েছিল। সঙ্গে গাড়িটিও। তবে কে বা কারা গাড়ির ভেতরে এমন চিরকুট লিখে পালিয়েছে তা জানা যায়নি।

বৃহস্পতিবার (৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে শুল্ক গোয়েন্দা ও অধিদফতরের একটি টিম গুলশানে অভিযান শুরু করে। অভিযানের এক পর্যায় গুলশানের ১১২ নম্বর রোডের রাস্তায় ফেলে রেখে যাওয়া বিলাসবহুল গাড়িটিসহ চিরকুটটি উদ্ধার করে গোয়েন্দারা।

চিরকুটে আরও লেখা ছিল- ‘আমি দেশের আইনের প্রতি সর্বদা শ্রদ্ধাশীল এবং শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানাই এবং এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত রাখার জন্য বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।’

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. মো: সহিদুল ইসলাম এ ব্যাপারে ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘বিলাসবহুল গাড়িটিতে কোনো ধরনের নম্বরপ্লেট ছিল না। তবে ধারণা করা হচ্ছে কোনো অভিজাত ব্যক্তি শুল্ক ফাঁকিতে আনা গাড়িটি কারো কাছ থেকে কিনেছিলেন। মান-সম্মানের ভয়ে হয়তো তিনি তা ফেলে রেখে চলে গেছেন।’

তিনি আরও জানান, গাড়িটির আনুমানিক মূল্য পাঁচ কোটি টাকা। এ বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত শেষে কাস্টমস আইন ও মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

ট্যাগ: banglanewspaper গাড়ি