banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর): গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে আফ্রিকা থেকে কয়েক দফায় সাতটি সাদা সিংহ আনা হয়েছিল। তার মধ্যে নানা প্রতিকুলতায় রোগে ভুগে তিনটি সিংহ মারা গেছে। বর্তমানে এ পার্কে চারটি সাদা সিংহ রয়েছে।

এদের মধ্যে দুইটি মাদি ও দুইটি পুরুষ। গত ২৪ মে(বৃহস্পতিবার) তাদের পরিবারে আরো এক নতুন সদস্য জন্ম নিয়েছে। এনিয়ে পার্কে সাদা সিংহের সংখ্যা দাড়ালো পাঁচএ। তবে নিরাপত্তার কথা ভেবে পার্ক কর্তৃপক্ষ আজ বৃহস্পতিবার সিংহ পরিবারে নতুন অতিথি আগমনের খবরটি প্রকাশ করে।

সাফারি পার্কের বন্যপ্রাণি সুপারভাইজার সারোয়ার হোসেন খান বলেন, সাদা সিংহ কিন্তু আলাদা কোন প্রজাতির সিংহ নয়। এদের দেহে চিনচিলা নামে এক ধরণের জিন থাকে। এ জিনের উপস্থিতির কারণে এদের বর্ণ হয় সাদা। এদের শরীরের রং সাদা হলেও চোখের রং সোনালী, নীলচে-ধূসর এমনকি নীলও হতে পারে। মা এবং বাবা সিংহের দেহে চিনচিলা জিন থাকলে তাদের শাবক কেবল সাদা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে বেশি।

এদের দেখা মিলে সাধারণত দক্ষিণ আফ্রিকায়। সকল বৈশিষ্ট্য বাদামী সিংহের মত হলেও এরা হিংস্রতায় এবং আকারে ও ওজনে তাদের চেয়ে বেশি হয়। ২০১৩ সাল থেকে ২০১৬সালের মধ্যে আফ্রিকা থেকে ৭টি সাদা সিংহ আনা হলেও বিভিন্ন রোগে তাদের মধ্যে তিনটি মারা যায়। পরে এ দুই দম্পতির ঘরে ২০১৬ সালে দুইটি বাচ্চার জন্ম হয়। কিন্তু এক বছরের মধ্যে ওই দুইটি বাচ্চাও মারা যায়।

এর প্রায় দুই বছর পর চলতি বছরের মে মাসের শেষ সপ্তাহের কোন এক সময় এ পার্কে আবার জন্ম নিল একটি শ্বেত সিংহ শাবক। জন্মের সময় বাচ্চাদের সাধারণত চোখ ফুটে না। এদের চোখ ফুটতে ৩-১১দিন সময় লাগে। জন্মের সময় এদের ওজন ১-৫কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এসময় বাঘিনী বাচ্চাকে নিয়ে লোকালয়ের আড়ালে রেখে নিবিড় পর্যবেক্ষনে রাখে এবং সেখানে অন্যসঙ্গীদের পর্যন্ত যেতে দেয় না।

শাবকরা ১০-১৫ দিনে হাটতে শেখে। ৪-৫ মাস বয়স থেকে মায়ের দুধের পাশপাশি অন্য খাবার খাওয়ানো শেখানো হয়। এরা প্রায় বছর দুয়েক পর্যন্ত মায়ের কাছাকাছি থাকে। এদের প্রধান খাদ্য গো মাংস ও প্রতি শুক্রবার জীবিত খরগোস দেয়া হয়। প্রায় মাসপর এরা বাচ্চাকে সামনে নিয়ে আসে। পরেই আমাদের নজরে পরে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোতালেব জানান, এ শাবকগুলো দেড় থেকে দুই বছরের বাচ্চাগুলো প্রজননক্ষম হয়। এদের আয়ুষ্কাল পুরুষ ১০-১২বছর এবং মাদি ১২-১৩বছর। পূর্ণ বয়ষ্ক মাদি সিংহের দৈর্ঘ্য ৪ফুট, ওজন ১৫০-২০০কেজি এবং পুরুষদের বেলায় দৈর্ঘ্য ৬ফুট ও ওজন ২০০-৩০০কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এ পার্কে সাদা সিংহ ছাড়াও ১৬টি ব্রাউন সিংহ রয়েছে। প্রতিদিন পর্যটকরা কোর সাফারি পার্কে থাকা এসব জন্তু দেখতে ভীড় জমিয়ে থাকে। দিন দিন এখানে প্রাণিরা শাবক জন্ম দিয়ে পর্যটকদের আকর্ষন বাড়ছে। আয় বাড়ছে পার্কের। 

ট্যাগ: Banglanewspaper সাফারি পার্ক সাদা সিংহ নতুন অতিথি