banglanewspaper

এস. এম. আশরাফুল হক রুবেল, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী সীমান্তে ১৪ বাংলাদেশীকে আটক করেছে বিজিবি। বৃহস্পতিবার সন্ধায় আটকদের বিরুদ্ধে পাসর্পোট আইনে ভূরুঙ্গামারী থানায় একটি মামলা করে বিজিবি। পুলিশ জানায়,আটকরা দীর্ঘদিন ভারতের রাজস্থানে ইট ভাটায় মজুরের কাজ করতো। তারা বুধবার রাতে ভূরুঙ্গামারীর উত্তর ধলডাঙ্গা সীমান্তের ৯৮৮ মেইন পিলারের কাছ দিয়ে দেশে ফেরার পথে আটক করে বিজিবি।আটকদের মাঝে পাঁচ শিশু ও চারজন নারী রয়েছে।

তারা সবাই জেলার ফুলবাড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাসিন্দা। আটককৃতরা হলো বিদ্যাবাগিশ গ্রামের ইউসুফ আলীর পুত্র আব্দুস ছোবান,ছোবানের স্ত্রী মর্জিনা, পুত্র নুরনবী, আব্দুল মালেকের পুত্র রফিকুল ইসলাম,রফিকুলের স্ত্রী এছপা বেগম, পুত্র এরশাদুল হক,ইসরাফুল ইসলাম ও আজওয়াটারী গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে জামাল, জামালের স্ত্রী মমতা বেগম, ছেলে মহাম্মদ আলী, মকছেদুল এবং চন্দ্রখানা গ্রামের আজগর আলীর পুত্র নজরুল ইসলাম,নজরুলের স্ত্রী মাবিয়া খাতুন, মেয়ে নাছিমা খাতুন।

এরা প্রায় ৪ বছর যাবৎ ভারতের রাজস্থানে ইট ভাটায় মজুরের কাজ করতো। আটককৃতরা  ঐ সীমান্ত দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে উক্ত সীমান্তে উত্তর ধলডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার আবু ইউসুফ এর নেতৃত্বে টহলদল তাদের আটক করে। পরে বৃহস্পতিবার বিকেলে তাদের ভুরুঙ্গামারী থানায় হস্তান্তর করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে ছয় জন শিশুকিশোর এবং ১ জন গর্ভবতী নারীকে তাদের অভিভাবকের জিম্মায় ছেড়ে দিয়ে বাকী ৭ জনের বিরুদ্ধে বিজিবি কর্তৃক পাসপোর্ট আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ৪ তারিখ ৫ জুলাই ২০১৮। 

ওসি ইমতিয়াজ কবির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।
 

ট্যাগ: banglanewspaper কুড়িগ্রাম