banglanewspaper

কোটা সংস্কার আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলাম তারিকের মেরুদণ্ডের হাড়ও ভেঙ্গে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এ বিষয়ে চিকিৎসক সাইদ আহমেদ বাবু বলেন, ‘গতকাল তরিকুলের পিঠের এক্স-রে করিয়েছি। ভারি কোন কিছুর আঘাতে কোমরের ঠিক উপরে মেরুদন্ডের হাড় ভেঙ্গে গেছে। এ জন্য তাঁকে অস্ত্রোপচার করাও লাগতে পারে। তবে রিপোর্ট হাতে না আসা পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। এটার জন্য তরিকুলকে দীর্ঘ সময় চিকিৎসা নিতে হবে।’

হাসপাতালে তরিকুলের সঙ্গে থাকা সহপাঠীরা জানান, তাঁর শারীরিক অবস্থা তেমন ভালো না। অনেকগুলো পরীক্ষা করানো হয়েছে। সবগুলোর রিপোর্ট এখনো আসেনি। তরিকুলের মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙ্গে গেছে। এটা ভালো না হলে তিনি আর সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারবেন না। তরিকুলের কোমরের উপরের জায়গায় প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করছেন। একটু নড়াচড়া করলেই ব্যথা বাড়তে থাকে।

তরিকুলের ছোট বোন ফাতেমা খাতুন বলেন, ‘আমরা দরিদ্র পরিবারের মানুষ। তরিকুল ভাইয়ের চিকিৎসার জন্য প্রতিদিন প্রায় পাঁচ হাজার টাকা প্রয়োজন হচ্ছে। এত টাকা আমরা কোথায় পাব? আমার ভাইয়ার খুব কষ্ট হচ্ছে। সারাক্ষণ একভাবে শুয়ে থাকতে হচ্ছে। বেডে উঠে বসতেও পারছেন না। একটু পর পর কাতরিয়ে উঠছেন।’

গত ২ জুলাই বিকেলে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে পতাকা মিছিল বের করলে ছাত্রলীগ হামলা চালায়। এতে ১৫ জন শিক্ষার্থী আহত হয়। এদের মধ্যে তরিকুলকে ধাওয়া দিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা রামদা, হাতুড়ি, লোহার পাইপ ও লাঠি দিয়ে আঘাত করেন। আঘাতে তরিকুলের ডান পায়ের হাড় ভেঙ্গে যায়। এছাড়া মাথায় গুরুতর জখম হয়।

পরে তরিকুলকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু গতকাল শুক্রবার তরিকুলকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। সহপাঠীরা তরিকুলকে নগরীর রয়্যাল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ট্যাগ: banglanewspaper কোটা