banglanewspaper

মোঃ সাব্বির আহমাদ আবীর, জাককানইবি প্রতিনিধি: গত ৯মে ২০১৮তে অনাড়ম্বরভাবে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) এক যুগ পালন করেছিলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে (শনিবার) ৭ জুলাই দিনব্যাপী আবারো পালিত হলো এক যুগ পূর্তি উৎসব।

শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিত আবারো এক যুগ পূর্তি উৎসব পালন হলেও অবহেলিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজকের এই অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে নতুন বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে আবারো। উক্ত অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহন ছিল খুবই কম। বন্ধের দিনে এক যুগ পূর্তি উৎসব পালনের কারনে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নেই যার মূল কারন হিসেবে শিক্ষার্থীদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে এই উৎসব নিয়ে প্রশাসন কোন প্রচার প্রচারণা করেনি যার ফলস্বরূপ আজকের এই অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে নান ভোগান্তিতে পোহাতে হয়েছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মকর্তাদের। অনুষ্ঠানে শিক্ষক-কর্মকর্তাদের আসন না পেয়েও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে । অন্যদিকে গণমাধ্যম কর্মীদের জন্য অন্যান্য অনুষ্ঠানে আসনের ব্যবস্থা থাকলেও আজ কোন ব্যবস্থা রাখেনি আয়োজক কমিটি।

সরেজমিনে এর সত্যতা পাওয়া গেছে, শোভাযাত্রার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে দেখা গেছে  দ্বিতীয় সারিতে। ব্যনারের সবটাই দখলে ছিলো বৃহত্তর ময়মনসিংহ সাংস্কৃতিক ফোরাম এর। সংগঠনটির সদস্যদের বহন করা বাসে ব্যানার করে লিখা এটা একযুগ পূর্তি উৎসব ও ঈদ পুনর্মিলনী হিসেবে।

শিক্ষার্থী বিহীন এমন আয়োজনে শিক্ষার্থীরা আয়োজক কমিটি ও বৃহত্তর ময়মনসিংহ সাংস্কৃতিক ফোরামের একগুয়েমী ও দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণে চরম ক্ষোভ ও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন।

এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর বলেন আমাদের এই আয়োজন খুবই অল্প সময়ের মধ্যে হয়েছে। তাই এমন সংকট হয়েছে। আমরা চেয়েছি ভালো একটি অনুষ্ঠান হোক কিন্তু কিছু কারনে  সামান্য  সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে যার প্রভাব পড়ছে তা স্বীকার করেই দুঃখ প্রকাশ করছি।

ট্যাগ: banglanewspaper জাককানইবি