banglanewspaper

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের বড়াইগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ওসমান গণি মিয়াজী (৩৪) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। র‌্যাবের দাবি, নিহত ওসমান গণি মাদক বিক্রেতা। তার বিরুদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় মাদক ও চাঁদাবাজিসহ পাঁচটি মামলা রয়েছে। নিহত ওসমান উপজেলার গুরুমশৈল গ্রামের মৃত মনসুর আলী মিয়াজীর ছেলে।

এ ঘটনায় র‌্যাবের এএসআই মনজুর আহমেদ ও কনস্টেবল এনামুল হক আহত হয়েছেন বলে র‌্যাব সুত্রে জানা গেছে। মঙ্গলবার রাত পৌনে ১২টায় উপজেলার বাহিমালি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৭.৬২ বিদেশি পিস্তল, চার রাউন্ড গুলি ভর্তি ম্যাগজিন, পিস্তলের গুলির খালি খোসা, সাদা পলিথিনের প্যাকেটে রাখা ৪১০ গ্রাম হেরোইন, নগদ এক হাজার ৪১০ টাকা, চার্জার লাইট, দুটি গ্যাসলাইট, মোবাইল ফোন, দুটি সিগারেটের প্যাকেট এবং বিভিন্ন কালারের সাতটি স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৫ এর নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর শিবলী মোস্তফা জানান, রাতে র‌্যাবের একটি টিম ডিউটি পালনকালে বাহিমালি ও ভাটোপাড়ার মধ্যবর্তী ফাঁকা জায়গায় কিছু লোকের সন্দেহজনক গতিবিধি দেখে সেখানে যায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে কয়েকজন দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেয়া হলে তারা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়।

পরে ঘটনাস্থলে অজ্ঞাতনামা একজনকে আহত অবস্থায় পড়ে থাকলেও বাকিরা পালিয়ে যায়। পরে আহত যুবককে উদ্ধার করে বড়াইগ্রাম হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত র‌্যাব সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পরে বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস নিহত যুবকের নাম ওসমান গণি বলে নিশ্চিত করে জানান, নিহত ওসমান গণির বিরুদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় মাদক ও চাঁদাবাজিসহ অন্তত পাঁচটি মামলা রয়েছে। সকালে লাশটি পোষ্টমর্টেমের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। 
 

ট্যাগ: banglanewspaper নাটোর