banglanewspaper

মুহা. ইসমাইল খান, নরসিংদী: নরসিংদীর মনোহরদীতে মোবাইল ফোনের সিম কার্ডকে কেন্দ্র করে পিটিয়ে ও গলায় রশি দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে আইয়ুব খান (২০) নামের এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে। নিহত আইয়ুব খান উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের কোচেরচর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

সে পেশায় রাজমিস্ত্রী ও ইজিবাইক চালক ছিল। গত মঙ্গলবার বিকালে দৌলতপুর ইউনিয়নের কোচেরচর গ্রামের কদমতলী ইটভাটা এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে। 

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত কয়েকদিন ধরে একই গ্রামের কিরন ও আবু বকরের সঙ্গে মোবাইলের সিমকার্ড নিয়ে আইয়ুব খানের বিবাদ চলে আসছিল।

এ ঘটনার জের ধরে মঙ্গলবার বিকেলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী কিরন ও আবু বকর মিলে স্থানীয় কদমতলী ইটভাটা এলাকায় আইয়ুব খানকে খবর দিয়ে নিয়ে আসে। তাদের কথামতো আইয়ুব সেখানে পৌঁছা মাত্র ঘাতকরা রশি দিয়ে তার হাত-পাঁ বেধে ফেলে। পরে তাকে বেদড়ক  পিটুনি দেয়া হয়। এক পর্যায়ে সে নিস্তেজ হয়ে মাটিতে পড়ে গেলে তার মৃত নিশ্চিত করতে গলায় রশি প্যাঁচিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের পিতা সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে মনোহরদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দীন ভূঞা বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে আসামীরা পলাতক রয়েছে। তবে তাদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। 
 

ট্যাগ: banglanewspaper মনোহরদী