banglanewspaper

মুক্তিযুদ্ধকালীন গণহত্যা ও নির্যাতনের ইতিহাস সংরক্ষণে খুলনায় ‘গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর’ হতে যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার খুলনা প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনী আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সম্মেলন থেকে জানানো হয়, আগামী ১৭ মে শনিবার নগরীর শেরেবাংলা রোডের ময়লাপোতা মোড়ের একটি বাড়িতে প্রাথমিকভাবে এ আর্কাইভ ও জাদুঘরের যাত্রা শুরু হবে।

‘১৯৭১: গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর বাস্তবায়ন কমিটি’র আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনী খুলনার উপদেষ্টা ডা. শেখ বাহারুল আলম লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

এসময় বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনীর সভাপতি মুনতাসির মামুন উপস্থিত ছিলেন।

বাহারুল জানান, প্রাথমিকভাবে ময়লাপোতা মোড়ে প্রয়াত চিকিৎসক ডা. মো. নাসিমের ৩৩৪ নং বাড়ির নিচতলায় দুইট ঘর ভাড়া নিয়ে আর্কাইভ ও যাদুঘরের কাজ শুরু করা হবে।

সরকারিভাবে বাড়ি বরাদ্দ পাওয়া গেলে সেখানে স্থায়ীভাবে আর্কাইভ ও জাদুঘর গড়ে তোলা হবে।

মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত কোন দলিল, তথ্য নথিপত্র, লিফলেট, বিশেষ স্থানের ছবি, মুক্তিযোদ্ধার  পরিচিতি, গণহত্যাস্থলের বিবরণ, মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যবহৃত কোন উপকরণ, নির্যাতিত কোন ব্যক্তির পরিচয় সাক্ষাতকার ইত্যাদি দিয়ে আর্কাইভ প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতার আহ্বান জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সম্মেলনে বলা হয়, আর্কাইভ ও জাদুঘর উদ্বোধন উপলক্ষে ১৭ মে বিকাল ৪টায় নগরীর বিএমএ মিলনায়তনে একাত্তরের গণহত্যা ও নির্যাতন সম্পর্কিত তিন দিনব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত প্রদর্শনী সবার জন্য খোলা থাকবে।

এছাড়া ওই দিন সকাল ১০টায় খালিশপুরে নয়াবাটি মুন্সী বাড়িতে একাত্তরের ৭ এপ্রিল সংঘটিত গণহত্যায় শহীদদের কবর চিহ্নিতকরণ ও স্মৃতিফলক স্থাপন করা হবে।

ট্যাগ: