banglanewspaper

মনিরুল ইসলাম মনি: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে নানামুখি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাথে সকল মন্ত্রণালয়, বিভাগ, জেলা পর্যায়ের ৫৫টি  এবং উপজেলা পর্যায়ের ৩০টি সরকারি দপ্তরকে একটি অভিন্ন নেটওয়ার্কের আওতায় আনার লক্ষ্যে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর অধীনে ইনফো সরকার প্রকল্প ফেজ-২ এর আওতায় ন্যাশনাল ব্যাকবোন স্থাপনের কাজ হাতে নেয় সরকার।

২০১৩ সালে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন কল্পে আউটসোর্সিং পদ্ধতিতে প্রতিটি উপজেলায় ১ জন করে দক্ষ টেকনিশিয়ান নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। নিয়োগকালীন সময়ে সরকারের গেজেট অনুযায়ী (১৬ থেকে ২০) গ্রেড আউটসোর্সিং থাকলেও নীতিমালার ব্যত্যয় ঘটিয়ে ১৩ তম গ্রেডে আউটসোর্সিংয়ে নিয়োগ দেয়া হয়। টেকনিশিয়ানরা ২০১৪ সালের ১ ফেব্রুয়ারি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে যোগদান করেন। নিয়োগকৃত টেকনিশিয়ানরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সরাসরি তত্বাবধানে কাজ করার ফলে উপজেলা প্রশাসন এবং জেলা প্রশাসনের আইসিটি কার্যক্রমে গতি ফিরে আসে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের ই-মেইল প্রেরণ, গ্রহণ, জাতীয় তথ্য বাতায়ন হালনাগাদ, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম তদারকি, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম তদারকি, ন্যাশনাল ব্যাকবোন রক্ষনাবেক্ষণ, ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম রক্ষনাবেক্ষণ ও পরিচালনা, নাগরিক সেবায় ফেসবুক ব্যবহারে সহযোগিতা, উপজেলা পর্যায়ের সরকারি অফিসগুলোতে আইসিটি যন্ত্রপাতি রক্ষনাবেক্ষণে কারিগরী সহায়তা প্রদানসহ কর্মকর্তা/কর্মচারীদের তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারে নিয়মিতভাবে সহযোগিতা করে আসছে।

জুন, ২০১৬ ইনফো সরকার ফেজ-২ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হলেও এখন পর্যন্ত কর্মস্থলে অব্যাহত আছে টেকনিশিয়ানরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছিুক একাধিক উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে কথা বলে জানা গেছে বর্তমান সরকারের ডিজিটাল কার্যক্রম সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনার জন্য উপজেলা পর্যায়ে টেকনিশিয়ান পদটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সে কারণে তাদেরকে স্থায়ীকরণের জন্য ইতিমধ্যেই মাঠ প্রশাসনের প্রায় সকল কর্মকর্তা মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ পাঠিয়েছেন। তাদের মতে টেকনিশিয়ানগণ কারিগরী জ্ঞানসম্পন্ন বিধায় তাদেরকে মাঠ প্রশাসনে প্রয়োজন।

কারিগরী জ্ঞান সম্পন্ন জনবল ছাড়া সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ ব্যবহত হতে পারে বলে মাঠ প্রশাসনে কর্মরতদের ধারণা। টেকনিশিয়ানদের রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের জন্য গত জুলাই মাসে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে গৃহিত হয়েছে। উপজেলা টেকনিশিয়ানদের আবেদনের প্রেক্ষিতে  গত ০৭ জানুয়ারী ২০১৬ তারিখে আইসিটি অধিদপ্তর টেকনিশিয়ান পদ সৃষ্টির লক্ষ্যে একটি প্রস্তাবনা আইসিটি মন্ত্রনালয়ে প্রেরণ করে।

সে প্রস্তাবনাটি আইসিটি মন্ত্রণালয় ২৫ জানুয়ারী ২০১৬ তারিখে ৫৬.০০.০০০০.০১৯.০৩৮.০১৯.১৫.১৩ নম্বর স্মারকপত্রের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করে। জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয় থেকে ফাইলের কিছু সংশোধনী চেয়ে ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে আইসিটি মন্ত্রণালয়ে ফেরত পাঠায়। এরপর অজ্ঞাত কারণে ফাইলটি আর অগ্রগতি হয়নি।

খোদ আইসিটি মন্ত্রণালয়ও টেকনিশিয়ানদের গুরুত্ব অনুধাবন করে উপজেলা পরিষদ থেকে বেতন ভাতা প্রদানের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে ০১ জুন ২০১৬ খ্রি তারিখে ৫৬.০০.০০০০.০১৯.৩১.০৩৪.১৫.১৪৮ স্মারকেপত্র প্রেরণ করে। কিন্তু উপজেলা পরিষদের জনবল কাঠামোতে টেকনিশিয়ান পোষ্ট না থাকায় স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে সেটি নাকচ করে দেয়া হয়।

গত ৪ মাস ধরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল সন্তানরা বেতন ভাতা না পেয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। তাদের রাজস্ব খাতে অর্ন্তভূক্ত করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারা। 

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
ফেসবুকের মতো প্ল্যাটফর্ম চালু করছে মাইক্রোসফট

banglanewspaper

সোশ্যাল মিডিয়া আনছে টেক জায়ান্ট কোম্পানি মাইক্রোসফট। চলতি সপ্তাহে সংস্থাটি ভিভা এনগেজ প্ল্যাটফর্মে এ তথ্য ঘোষণা করেছে। প্ল্যাটফর্মটি মাইক্রোসফট টিমস অ্যাপের সঙ্গেই চলবে। ধারণা করা হচ্ছে, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবেই বিশ্ববাসীর সঙ্গে ভিভা এনগেজের পরিচয় করাতে চলেছে মাইক্রোসফট।

তবে মজার বিষয় হচ্ছে, ভিভা এনগেজ নামক প্ল্যাটফর্মের লুক ও ফিল এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে, যা দেখতে হুবহু ফেসবুকের মতো। এর হোম ফিডে বিভিন্ন পোস্ট, ভিডিওসহ আরও অনেক কিছু দেখা যাবে। সম্প্রতি নতুন প্লাটফর্মটির একটি ছবি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এতে দেখা গেছে, হোম স্ক্রিনের ঠিক বাঁ দিকে থাকছে সেটিংস অপশন। এছাড়াও অন্যান্য কমিউনিটিতে যোগ দেওয়ার অপশনটি পাওয়া যাবে এখানে।

এসব দেখেই বিশেষজ্ঞরা দাবি করছেন, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মটি নিয়ে ট্রায়েড অ্যান্ড টেস্টেড অ্যাপ্রোচ চালাচ্ছে মাইক্রোসফট। কারণ, মার্কেটে ফেসবুকের মতো বড় প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছে।

তবে মাইক্রোসফটের নতুন প্ল্যাটফর্মটিতে যে শুধুই ফেসবুকের সঙ্গে সাদৃশ্য রয়েছে এমনটা নয়। ইনস্টাগ্রাম এবং স্ন্যাপচ্যাটে যেমন স্টোরিজ ফিচার দেখা যায়, একই ধরনের ফিচার মাইক্রোসফটের ভিভা এনগেজেও দেখা যেতে পারে। তবে সোশ্যাল প্লাটফর্ম হলেও এটি মূলত ব্যবসার ওপরেই ফোকাস করবে মাইক্রোসফট।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জন্য সুখবর

banglanewspaper

পঞ্চম প্রজন্মের মুঠোফোন সেবা ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক চালু করেছে মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) নেট দুনিয়ায় ফাইভ-জি স্পিডে যাত্রা করে প্রতিষ্ঠানটি। ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের কয়েকটি নির্দিষ্ট স্পটে এ সেবা চালুর মাধ্যমে অপারেটরটি পথচলা শুরু করে।এর মাধ্যমে গ্রাহকের ফাইভ-জি সমর্থিত মুঠোফোনে এ সেবাটি পাওয়া যাবে বলে জানায় গ্রামীণফোন।তবে এর জন্য ডিভাইস প্যাচ প্রয়োজন হবে।

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী ইয়াসির আজমান বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সম্ভাবনা উন্মোচনের মাধ্যমে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যপূরণে আমরা ফাইভ-জি কানেক্টিভিটি ও এর ইউজ কেসের ট্রায়াল পরিচালনা করছি। এ জন্য বাংলাদেশ সরকার, নিয়ন্ত্রক সংস্থা, নেটওয়ার্ক পার্টনার, ইকোসিস্টেম প্লেয়ার এবং গ্রামীণফোন টিমের সদস্যদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

তিনি বলেন, সবাই একসঙ্গে আগামী দিনের কানেক্টিভিটিকে (ফাইভ-জি) সম্ভাবনায় পরিণত করেছেন। ফাইভ-জি’র ট্রায়াল পরিচালনা ও ফাইভজি’র চ্যালেঞ্জগুলো চিহ্নিত করতে আমরা সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা ও পরামর্শ নিয়ে কাজ করার ব্যাপারে প্রত্যাশী। বর্তমানে আমরা ফোরজি নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছি; একইসঙ্গে আমরা ভবিষ্যতের সক্ষমতা তৈরি, ফাইভ-জি ইকোসিস্টেম বিনির্মাণ এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, আইওটি, ব্লকচেইন ও রোবোটিকসের মাধ্যমে শিল্পখাতের জন্য বিভিন্ন সল্যুশন নিয়ে আসতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১২ ডিসেম্বর দেশের ৬টি জায়গায় পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভ-জি চালু করে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
নম্বর সেভ না করে হোয়াটসঅ্যাপে যেভাবে বার্তা পাঠাবেন

banglanewspaper

মেটার মালিকানাধীন জনপ্রিয় মেসেজিং প্লাটফর্ম হোয়াটসঅ্যাপ একের পর এক নতুন ফিচার আনছে। এটির কোটি গ্রাহক হলেও, একটি কারণে ব্যবহারকারীরা সমস্যায় পড়েছেন। কীভাবে নম্বর সেভ না করে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পাঠাতে হয় সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকা জরুরি। এতে সুবিধে হবে আপনার।

সেভ নয় এমন নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পাঠানোর অফিসিয়াল উপায় নেই। তবে এটি একটি দরকারি ফিচার। কারণ অনেক হোয়াটসঅ্যাপ গোপনীয়তা সেটিংস ‘মাই কনন্ট্যাক্টস’র মধ্যে সীমাবদ্ধ এবং আপনি হয়তো চান না যে আপনার ফোন বুকের প্রত্যেকে আপনার প্রোফাইল চিত্রটি দেখুক।

কিছু তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ রয়েছে, যা আপনাকে নম্বর সেভ না করেই হোয়াটসঅ্যাপ বার্তা পাঠাতে দেয়। কিন্তু এই অ্যাপগুলো ব্যবহার করাকে উৎসাহিত করা হয় না। কারণ, এটি আপনার নিরাপত্তাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। অনেকসময় আপনার অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ হতে পারে।

নম্বর সেভ না করে যেভাবে মেসেজ পাঠাবেন

আপনার স্মার্টফোনে যেকোনো ব্রাউজার খুলুন এবং অ্যাড্রেস বারে ‘https://wa.me/phonenumber’ টাইপ করুন। এই URL কপি এবং পেস্ট করা উচিত নয়। ‘ফোন নম্বর’র পরিবর্তে আপনাকে প্রথমে URL-এ আপনার মোবাইল ফোন নম্বর টাইপ করতে হবে। আপনি আপনার ফোন নম্বর যোগ করার পরে যেমন- ‘https://wa.me/991125387’ URL হওয়া উচিত।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জন্য দুঃসংবাদ

banglanewspaper

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জন্য সর্বনিম্ন মোবাইল রিচার্জ নির্ধারণ করেছে।

শুক্রবার (১ জুলাই) এক এসএমএসে প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহকদের জানিয়েছে, এখন থেকে গ্রামীণফোন ব্যবহারকারীরা ২০ টাকার কম রিচার্জ করতে পারবেন না। রিচার্জের মেয়াদ ৩০ দিনের। তবে ১৪ ও ১৬ টাকার মিনিট প্যাকেজগুলো কিনতে বাধা নেই। রিচার্জ কার্ডগুলোও আগের মতোই চালু থাকবে।

এ ছাড়া ২১ এবং ২৯ টাকা রিচার্জে দুই এবং তিন দিন মেয়াদে যেকোনো লোকাল নম্বরে স্পেশাল কল রেট পাওয়া যাবে। জিপি থেকে জিপি নাম্বারে সর্বনিম্ন ১০ টাকা ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা যাবে।

গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিভিন্ন প্রোডাক্টের সুবিধাসমূহ সরলীকরণ করার অংশ হিসেবে সর্বনিম্ন রিচার্জ নির্ধারণ করেছে তারা।

এর আগে মানসম্পন্ন সেবা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় গ্রামীণফোনকে ২৮ জুন থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নতুন সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশন (বিটিআরসি)।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে বিটিআরসির নিষেধাজ্ঞা

banglanewspaper

মানসম্মত সেবা দিতে না পারায় দেশের শীর্ষ মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি।

বুধবার (২৯ জুন) গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, গ্রামীণফোন শুধু গ্রাহক বাড়াচ্ছে কিন্তু সেবার মান বাড়াচ্ছে না। তারা সেবার মান ভালো করার কোনো উদ্যোগও নিচ্ছে না। এটা হতে দেওয়া যাবে না। যতদিন না তারা সেবার মান ভালো করবে এবং তা সন্তোষজনক পর্যায়ে উন্নীত না হবে ততদিন গ্রামীণফোনের সিম বিক্রি বন্ধ থাকবে।

এ বিষয়ে বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র বলেন, গ্রামীণফোন মানসম্মত সেবা দিতে পারছে না। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তাদের সিম বিক্রি বন্ধ থাকবে।

৮ কোটি ৪৯ লাখ ৫০ হাজারের এই মোবাইল ফোন অপারেটর বর্তমানে এক মেগাহার্টজ তরঙ্গে ১৪ লাখ গ্রাহককে সেবা দিচ্ছে, যা অন্যান্য অপারেটরের চেয়ে বেশি।

গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত সর্বশেষ নিলামে তারা সবচেয়ে বেশি তরঙ্গ (৬০ মেগাহার্টজ) কিনেছে। নতুন তরঙ্গ যুক্ত হলে এক মেগাহার্টজ তরঙ্গে ৭ লাখ ৭০ হাজার গ্রাহককে সেবা দেওয়া হবে।

ট্যাগ: