banglanewspaper

আন্তজার্তিক ডেস্ক: মাত্র ১৫ বছর বয়সে স্কুলে যাওয়ার পথে সোয়াতে তালেবান সন্ত্রাসীদের শিকার হন পাকিস্তানের নারী শিক্ষার প্রতীক মালালা ইউসুফজাই। স্কুলে পড়াশুনার বন্ধ করার জন্যে তালেবানরা তাকে চাপ দিয়ে আসছিল এবং তা না শুনে লেখাপড়া অব্যাহত রাখার জন্যে তাকে হত্যার জন্যে সন্ত্রাসীরা স্কুলে যাবার পথে তাকে গুলি করে।

এ খবরটি বিশ্ব মিডিয়ার নজর কাড়ে। চিকিৎসার জন্যে মালালাকে পাকিস্তান থেকে লন্ডন নেওয়া হয়। চিকিৎসা শেষে সেখানেই পড়াশুনা শুরু করেন মালালা। এরপর সবচেয়ে কম বয়সে নোবেল পুরস্কার পান।

এদিকে পাকিস্তানের নারী শিক্ষার প্রতীক মালালা ইউসুফজাই তার পড়াশুনা শেষ করে টুইটারে যোগ দিয়েছেন। তালেবান সন্ত্রাসীদের গুলির আঘাতে মালালা মারাত্মক আহত হবার পরও তার লেখাপড়া অব্যাহত রাখেন ও বিশ্বে মেয়েদের লেখাপড়ার জন্যে এক অনুকরণীয় আদর্শ হয়ে ওঠেন।

মেয়েদের লেখাপড়ার জন্যে সংগ্রাম অব্যাহত ও উদ্বুদ্ধ করতে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে যোগ দিয়েছেন। ১৯ বছরের এ তরুণী টুইট করে জানিয়েছেন, স্কুলের লেখাপড়া শেষ করে তিনি টুইটারে যোগ দিয়েছেন।

ট্যাগ: