banglanewspaper

অাবুল হাসান ফায়েজঃ দেশের প্রচলিত আইন ও সংবিধান অনুযায়ী সকল সরকারি, আধা-সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা কেন্দ্র ও সামাজিক সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান গুলোতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি যথাযথ মর্যাদায় টাঙানো বাধ্যতামূলক সংবিধান স্বীকৃত  থাকলেও হবিগঞ্জ গ্যাস ফিল্ড কোম্পানী লিঃ এ ছিল তার ব্যতিক্রম।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে অদ্যবধি হবিগঞ্জ গ্যাস ফিল্ড কোম্পানী লিঃ এ  ছিল হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ছবি শূন্য। শুধু বঙ্গবন্ধু নয়, বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিও ছিলনা হবিগঞ্জ গ্যাস ফিল্ডে।

সংবিধানের আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে যুগের পর যুগ এ বিষয়ে নজর পরেনি ।  হবিগঞ্জ গ্যাসফিল্ডে আওয়ামী পন্থি যত কর্মকর্তা কর্মচারী আছে তারাও এতদিন ধরে নিশ্চুপ ছিলেন। কারণ বড় কর্তাদের সিদ্ধান্তের বাহিরে গেলে বিপদ হতে পারে। এতদিন এই বিষয়টি গোপন থাকলেও গত ২ জুলাই তারিখে রাতে এই বিষয়টি মাধবপুর উপজেলা সংগ্রামী  ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি আনু মোহাম্মদ সুমনের নজরে আসে।সাথে সাথে তিনি আওয়ামী পরিবারের সকলের সাথে যোগাযোগ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে হবিগঞ্জ গ্যাসফিল্ডের  উর্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

রাতেই হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ এর সাধারণ সম্পাদক মুকিদুল ইসলামের সাথে বিষয়টি আলাপ করেন। মুকিদুল ইসলাম তাকে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দেন।পরের দিন সকালেই আনু মোহাম্মদ সুমন তার নেতাকর্মীদের নিয়ে গ্যাসফিল্ডের উর্ধতন কর্মকর্তা  ডিজিএম  মুহাম্মদ অাবু তালেব  এর কাছে এই বিষয়ে জানতে চান।তখন ওই কর্মকর্তা  বলেন যে তাদের এমন কোন  নির্দেশ নেই।আনু মোহাম্মদ সুমন কঠোর সংগ্রামী চেতনায়  ডিজিএম কে হুশিয়ারী দিয়ে বলেন যে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে জাতির জনক ও দেশ নেত্রীর ছবি  যদি টাঙানো না হয়, তাহলে তিনি তার নেতাকর্মীদের নিয়ে আন্দোলনে কঠোর ডাকদিবেন ।

তখন ডিজিএম তার উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব জানাবেন বলেন অাস্বাস দেন। পরের দিন সকালে সুমন তার নেতাকর্মীদের নিয়ে আবারও জানতে চাইলে, তখন ডিজিএম বলেন যে তিনি সবার সাথে কথা বলেছেন এবং তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে শুধু হবিগঞ্জ গ্যাসফিল্ড নয় সকল   গ্যাসফিল্ডেই জাতির জনক এবং প্রধানমন্ত্রীর ছবি লাগানো হবে। তারই প্রেক্ষিতে পরদিন  হেড অফিস থেকে, হবিগঞ্জ গ্যাস ফিল্ড সহ তিতাস গ্যাস, বাখরাবাদ গ্যাস ও নরসিংদী গ্যাস  ফিল্ডে জাতির জনক ও দেশ নেত্রীর  ছবি পাঠানো হয় ও যতাযত মর্যাদার সাথে টাঙানো হয়েছে।

ট্যাগ: