banglanewspaper

ঢাবি প্রতনিধি: বেসরকারী বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, ডাকসু নির্বাচন হলে আগস্টের বিদ্রোহ সার্থক রূপ পাবে। সবাই ডাকসু নির্বাচন চায়। কিন্তু কিসের ভয়ে এ নির্বাচন হয় না, তা আমার জানা নাই। উল্টো ডাকসুর দাবিতে আন্দোলন করলে তাদেরকে হামলার সম্মুখীন হতে হয়। মন্ত্রী এসময় সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে যে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে, তার দ্রুত অবসান চান।  

বুধবার (২৩ আগস্ট) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।
 
২৩ আগস্ট ঢাবি কালো দিবস পালন  এবং ২০০৭ সালের আগস্ট মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্রদের ওপর সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নির্যাতনের বিচারের দাবিতে এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। 

রাশেদ খান মেনন বলেন, ২০০৭ সালের আগস্টে সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নির্যাতনের বিচারের দাবিতে গঠিত তদন্ত কমিটির ১৩টি সুপারিশের মধ্যে মূখ্য সুপারিশ ছিল ডাকসু নির্বাচনসহ সকল বিশ^বিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দেয়া। প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ কেন ডাকসু নির্বাচন দিতে চান না, ডাকসু নির্বাচন দিতে বাধা কোথায় তা আমি জানি না।  

তিনি বলেন, বিভিন্ন মহল থেকে আজ শিক্ষাঙ্গনে গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে যে অনভিপ্রেত বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে, তার অবসান হতে হবে । চোখ রাঙিয়ে, ধমক দিয়ে এটিকে থামিয়ে দেয়ার অবকাশ নেই। বিতর্কের অবসান না হলে রাষ্ট্রের প্রধান তিনটি অঙ্গের (আইন, বিচার ও শাসন বিভাগ) প্রত্যেকের মধ্যে ভারসাম্যহীনতা তৈরি হবে। এতে অগণতান্ত্রিক শক্তি লাভবান হবে। 
 
ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল বলেন, এদেশে যখনই গণতন্ত্র হরণের চেষ্টা করা হয়, তখনই ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় গর্জে উঠে। ২৩ আগস্ট তারই প্রমাণ। ভবিষ্যতেও জাতির বৃহত্তর প্রয়োজনে যেকোন সংকটে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় জেগে উঠবে। 

ঢাবির অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. এম এম আকাশ বলেন, আমরা বর্তমানে ক্ষত রোগে ভুগছি। ডাকসু না থাকায় বর্তমানে ছাত্ররা হতাশাগ্রস্ত ও রাজনীতিবিমূখ। এ অবস্থায় সামরিক বাহিনী ২০০৭ সালের মত আবার কোন হামলা ঘটাতে চাইলে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় সে চেষ্টা রুখে দিতে পারবে কিনা সে ব্যাপারে সংশয় প্রকাশ করেন তিনি।  

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আনোয়ার হোসেন, ঢাবির সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এম শরীফুজ্জামান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী ।
 

ট্যাগ: