banglanewspaper

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে স্কুল ছাত্রী পান্না খানম ও তন্নী খানম।

সোমবার রাতে কাশিয়ানী উপজেলার রাতইল ইউনিয়নের পুরুলিয়া গ্রামের মো: সিরাজ মিয়ার মেয়ে তন্নী খানমের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী জেলা ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার অমৃত নগরের এক যুবকের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। মেয়েটি স্থানীয় করফা দাখিল মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী।

একই দিন উপজেলার ওড়াকান্দি ইউনিয়নের তিলছড়া গ্রামের মো: আবুল হোসেন মোল্লার মেয়ে স্থানীয় তিলছড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী পান্না খানমের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী গোপালপুর গ্রামের মো: শফিকুল ইসলামের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।

খবর পেয়ে কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এস এম মাঈন উদ্দিন তাদের বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেন। এ সময় তিনি দুই ছাত্রীর অভিভাবকদের কাছ থেকে বাল্য বিয়ে না দেওয়ার মুচেলেকা নেন কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এস এম মাঈন উদ্দিন।

ট্যাগ: