banglanewspaper

মনির হোসেন জীবন, নিজস্ব প্রতিনিধি: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের আর মাত্র ৪ দিন বাঁকি। প্রার্থীরা শেষ মুহুর্তের প্রচার-প্রচারণায় নিজের শক্তিমত্তা জানান দিচ্ছেন। অনেকটা গুছিয়ে ফেলেছে নিজ নিজ সংসদীয় আসনের মাঠ। আর অংশগ্রহণ মূলক আনন্দঘন একটি নির্বাচন উপহার দিতে সকল কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।

দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সংসদীয় আসন ১৯৪ গাজীপুর-১। দেশের বড় রাজনৈতিক দলগুলোর হেভিওয়েট প্রার্থীরাই এখানে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন যার ব্যত্যয় ঘটেনি এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও। গাজীপুর-১ আসনে মূল লড়াইটা হয় আ'লীগ ও বিএনপির মধ্যে। তবে আসনটি আ'লীগের ঘাঁটি হিসেবেই পরিচিত। কেননা দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে আসনটি টানা আ'লীগের দখলে।

এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাজীপুর-১ আসনে ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে লড়বেন গাজীপুর জেলা আ'লীগের সভাপতি ও সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ও ধর্ম মন্ত্রালয়ের মন্ত্রী এ্যাড. আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিএনপি থেকে ধানের শীষ প্রতীকে লড়বেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী।

সারাদেশের ন্যায় রাজধানীর অন্যতম প্রবেশপথ শিল্প-অধ্যুষিত গাজীপুর জেলার গাজীপুর-১ আসনে জোর প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আ'লীগের প্রার্থী মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এ্যাড. আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। দিন-রাত এক করে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন নির্বাচনী জনসভা, উঠান বৈঠক, সভা, সমাবেশে যোগ দিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। তুলে ধরছেন সরকারের উন্নয়নের চিত্র।

গাজীপুর-১ আসনের কালিয়াকৈর উপজেলা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১৮টি ওয়ার্ডে প্রচারণার দায়িত্ব বিভিন্ন ইউনিটে ভাগ করে দেয়া হয়েছে। আ'লীগের নেতা-কর্মী সংঘবদ্ধ হয়ে নৌকা'র প্রার্থীকে বিজয়ী করতে আঁট গাঁট বেঁধেই প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

আ'লীগের প্রচারণায় এবার নতুন মাত্রা যোগ করেছে গাজীপুর জেলা আ'লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ও কালিয়াকৈর পৌরসভার মেয়র প্রার্থী সিকদার জহিরুল ইসলাম জয়ের তৈরিকৃত বিগত ১০ বছরে গাজীপুর-১ আসনে উন্নয়নের প্রামাণ্য চিত্র। এরই মধ্যে প্রামাণ্য চিত্রটি বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের কাছে তুলে ধরা হয়েছে।

এছাড়া, নৌকা'র প্রার্থী এ্যাড.আ.ক.ম মোজাম্মেল হককে বিজয়ী করতে আ'লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, শ্রমিকলীগসহ সকল সহযোগী ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। ভোটারদের মন জয়ে ছুটছেন একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। কোন কিছুই যেন দমাতে পারছে না তাদের।

আ'লীগের নেতা-কর্মীরা তুলনামূলক ভাবেও সরব রয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যেও ভোটারদের কাছে আ'লীগের উন্নয়ন চিত্র ও নির্বাচনী ইশতেহার তুলে ধরছেন। 

অপরদিকে, গাজীপুরের রাজনীতিতে কোনঠাসা হয়ে পড়া বিএনপি ঘুরে দাঁড়াতে গাজীপুর-১ আসনে দীর্ঘ ১০ বছর দল থেকে বহিষ্কার হওয়া জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকীর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে বিএনপির প্রার্থী করেছে। প্রচার-প্রচারণার শুরুতে নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী মাঠে নামলেও শেষ মুহুর্তে মাঠে দেখা মিলছে না। তবে বিএনপির স্থানীয় নেতা-কর্মীদের নামে মামলা, প্রচারণায় বাঁধাসহ নানা কারণে প্রচারণায় ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছে বিএনপি এমনটাই দাবী স্থানীয় সিনিয়র নেতাদের। 

নির্বাচনী মাঠে দৃশ্যমান না থাকলেও নিরব প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। এরই মধ্যে বিএনপির প্রার্থী চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকীর ভোট চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও বার্তা 'তানবীর সিদ্দিকীর সমর্থক গোষ্ঠী' নামক ফেসবুক একাউন্ট থেকে প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া নেতা-কর্মীরা নিরব কৌশলে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন বলেও জানা গেছে। 

তবে স্থানীয় বিএনপির মধ্যে অভ্যন্তরীণ কোন্দল, বিভিন্ন কমিটি নিয়ে ঝক্কি-ঝামেলাসহ নানা ধরনের বিষয় নিয়ে সরব প্রচারণায় দেখা মিলছে না বিএনপির নেতা-কর্মীদের এমনটাও দাবী করছেন অনেক নেতা-কর্মীরা। 

আর সুষ্ঠ নির্বাচন হলে বিএনপি এ আসন থেকে জয়লাভ করবে বলে বেশ কয়েকবার বিভিন্ন সভায় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়ে বিএনপির প্রার্থী চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী আশা প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য, গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১৮টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত সংসদীয় আসন ১৯৪ গাজীপুর-১। মোট ভোটার সংখ্যা ৬৬৪৫১৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৩৩৫৮০৮ জন এবং মহিলা ভোটারের সংখ্যা ৩২৮৭১১ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ২৩৬ টি। মোট ভোট কক্ষ ১২০১টি এর মধ্যে অস্থায়ী বুথ রয়েছে ১৪টি।

ট্যাগ: bdnewshour24 গাজীপুর-১