banglanewspaper

ভোলা প্রতিনিধি ॥ ভোলার চরফ্যাশর উপজেলার শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নে চুুরির অপবাদে মধ্যযুগীয় কায়দায় এক কিশোরকে প্রকাশ্যে বেঁধে পেটানো মামলায় প্রধান আসামী ইউপি সদস্য আমজাদ (৪২) -কে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৩ জানুয়ারি) সন্ধা ৭টার দিকে চরফ্যাশন সহকারী পুলিশ সুপার মো.মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে তাকে চরফ্যাশন বাজার থেকে আটক করা হয়। এ তথ্য শশীভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ মনিরুল ইসলাম নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন,আমজাদের সহযোগী গ্রেফতাররকৃত বাবুলের দেয়া তথ্যমতে তাকে পুলিশ আটক করতে সক্ষম হয়। মামলার এজাহার ভুক্ত আসামী বাবুল মাঝি (৪৫) পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে আমজাদের নির্দেশ মোতাবেক কিশোর রুবেলের উপর অমানবিক নির্যাতন চালানোর কথা স্বীকার করেন।

মামলার অগ্রগতির স্বার্থে এ মুহুর্তে কিছু তথ্য গোপন রাখা হয়েছে । মঙ্গলবার সকালে বাবুল মাঝিকে পুলিশ গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিচারক ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বাবুল মাঝি পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আরও বলেন, অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আমজাদ এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ মূলক কার্যক্রমসহ জেলেদের উপর নির্যাতন করত। চড়া ধরে তার সুদের ব্যবসা ফলে জেলেসহ এলাকাবাসী তার কাছে জিম্মি। তার ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলে এসব অপকর্মের কথা বলতে সাহস পেতনা। এমনকি হাজারীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের নির্দেশ ও অমান্য করতেন ইউপি সদস্য আমজাদ। 

এদিকে মামলা দায়েরের পরই চিকিৎসার জন্য নির্যাতনের শিকার কিশোর রুবেলকে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার তার শারিরীক অবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে উপজেলা স্বাস্থ  কর্মকর্তা ডা. শোভন বসাক জানিয়েছেন। 

উল্লেখ্য, গত ১৫ নভেম্বর চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মুরগী চুরির অপবাদ দিয়ে পায়ের মাঝে লাঠি হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় রুবেল(১৪) নামের এক কিশোরকে হাজারীগঞ্জ ইউপি সদস্য আমজাদ হোসেন ও তার সহযোগিরা নির্যাতন করেন। প্রায় ২মাস পর এ ঘটনার স্থিরচিত্র ও ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে প্রশাসনের টনক নড়ে। পরে শুক্রবার নির্যাতিত কিশোরের মায়ের কাছ থেকে শশীভূষণ থানা পুলিশ শিশু আইন ২০১৩ এর ৭০ ধারায় মামলা গ্রহণ করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 ভোলা