banglanewspaper

আল কায়েদার সাবেক প্রধান ওসামা বিন লাদেনের পুত্র হামজা বিন লাদেন জঙ্গি সংগঠনটির নেতা হিসেবে আবির্ভূত হতে যাচ্ছেন- যুক্তরাষ্ট্রের এমন খবরের পর তার নাগরিকত্ব বাতিল করেছে সৌদি আরব। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে পাঠানো এক বিবৃতিতে একথা জানিয়েছে সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় ।

দেশটির উম্মুল কুরা পত্রিকা জানিয়েছে, হামজা বিন লাদেনের নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্ত গত বছরের নভেম্বরে রাজকীয় আদেশের মাধ্যমে নেয়া হয়েছিল।

সৌদির এই সিদ্ধান্তের একদিন আগে হামজা বিন লাদেন আল কায়েদার নেতৃত্ব গ্রহণ করছেন বলে জানায় মার্কিন যু্ক্তরাষ্ট্র। হামজা বিন লাদের খোঁজ দিতে পারলে এক মিলিয়ন ডলার পুরস্কার দেয়ারও ঘোষণা দেয় মার্কিন প্রশাসন।

ধারণা করা হচ্ছে, হামজা বিন লাদেনের বয়স ৩০ বছর। দুই বছর আগে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আমেরিকা যে ডকুমেন্ট তৈরি করেছে, সেখানে হামজা বিন লাদেনের নাম উল্লেখ রয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, হামজা বিন লাদেন যাকে বিয়ে করেছেন, তিনি মোহাম্মদ আত্তার মেয়ে। ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে হামলার সময় যে চারটি বিমান ছিনতাই করা হয়েছিল, সেগুলোর একটি ছিনতাই করেছিলেন এই মোহাম্মদ আত্তা। মোহাম্মদ আত্তার ছিনতাই করা বিমানটি নিউইয়র্কে অবস্থিত টুইন টাওয়ারের একটি ভবনে আঘাত করেছিল।

ওসামা বিন লাদেনকে হত্যার পর অ্যাবোটাবাদ কম্পাউন্ড থেকে তার যেসব চিঠিপত্র উদ্ধার করা হয়েছিল। সেগুলো থেকে ধারণা পাওয়া গিয়েছিল, হামজা বিন লাদেনকে তার পিতা ওসামা বিন লাদেন উত্তরসূরি হিসেবে তৈরি করছিলেন। এই সন্তান ওসামা বিন লাদেনের খুব প্রিয় ছিল এবং ওসামা বিন লাদেনের পর আল কায়েদার নেতা হিসেবে তাকেই ভাবা হচ্ছিল।

ধারণা করা হয়, হামজা বিন লাদেন তার মায়ের সঙ্গে ইরানে অনেক বছর কাটিয়েছেন এবং সেখানেই তার বিয়ের অনুষ্ঠান হয়েছে। কিন্তু অন্যান্য রিপোর্টে বলা হচ্ছে, তিনি পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং সিরিয়ায় বসবাস করেছেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক নিরাপত্তা বিভাগের সরকারী মন্ত্রী মাইকেল ইভানফ বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি তিনি সম্ভবত পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তে রয়েছেন এবং সীমান্ত পেরিয়ে ইরানে প্রবেশ করবেন। কিন্তু তিনি মধ্য এশিয়ার যেকোনো জায়গায়ও থাকতে পারেন।’

ট্যাগ: bdnewshour24 লাদেন পুত্র