banglanewspaper

চারগুণ দ্রুততার সঙ্গে চার্জ করতে সক্ষম নতুন একটি পাওয়ার গেজেট ব্যাংক বাজারে নিয়ে এসেছে স্থানীয় প্রযুক্তি পণ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান টেক রিপাবলিক লিমিটেড। কোয়ালকম ৩.০ পোর্টযুক্ত অ্যানার্জিপ্যাক হ্যালিকন পাওয়ার ব্যাংক সিরিজের প্রোলিংক পিপিবি ১০০১ মডেলের এই স্মার্ট পাওয়ার ব্যাংকটিতে আছে ১০ হাজার এমএএইচ ব্যাটারি।

কোয়ালকম ৩.০ প্রযুক্তি গুণে মাত্র ৩০ মিনিটেই ৮০ শতাংশ চার্জ সম্পন্ন হয়।‘পাস থ্রো প্রযুক্তি’র কল্যাণে পাওয়ার ব্যাংকটির দুইটি ইউএসবি পোর্টের মাধ্যমে একইসঙ্গে চার্জ গ্রহণ ও প্রদান করতে পারে। এর ‘ডিজিটাল এলইডি পাওয়ার ইন্ডিকেটরে’র মাধ্যমে

ব্যাটারিতে ঠিক কত শতাংশ চার্জ সঞ্চিত আছে রিয়েলটাইমে তা জানা যায়।

এতে ‘অ্যাডভান্স প্রোটেকশন প্রযুক্তি’ব্যবহার করায় বিদ্যুতে ওঠা-নামা, বিভ্রাট বা শকসার্কিট থেকে নিরাপদ রাখে। মাত্র ১৩.৮ মিলিমিটার পুরু প্রোলিংক পিবি ১০০১ পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যাচ্ছে বাহারি চার রঙে- ধূসর, সাদা, সোনালী ও গোলাপী। এটিরমাধ্যমে স্বাচ্ছন্দ্যে আইফোনও চার্জ করা যায়। এর মূল্য-  ২,৫০০ টাকা। মিলছে এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

ট্যাগ: bdnewshour24 শক্তিশালী পাওয়ার ব্যাংক বাজার

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
ওয়ালটনের নতুন ৪ অ্যান্টেনার ডুয়াল ব্যান্ড রাউটার বাজারে

banglanewspaper

নতুন মডেলের ওয়াই-ফাই রাউটার বাজারে এনেছে ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। ‘তরঙ্গ’ ব্র্যান্ডের প্যাকেজিংয়ে ডব্লিউআর১৫ (WR15) মডেলের এই রাউটারটির প্রধান আকর্ষণ ডুয়াল ব্যান্ড প্রযুক্তি। ১২০০ এমবিপিএস স্পিডের এই রাউটারটি ২.৪ গিগাহার্জ ব্যান্ডে ৩০০ এমবিপিএস এবং ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ডে ৮৬৭ এমবিপিএস পর্যন্ত স্পিড দিতে সক্ষম।

রাউটারটিতে রয়েছে ৪টি ৫ডিবিআই (5 dBi) এন্টেনা, যা সিগন্যালের স্ট্রেন্থ বাড়িয়ে ব্যবহারকারীকে দেবে আরও উন্নত ওয়ারলেস ইন্টারনেট ট্রান্সমিশন। এছাড়া রয়েছে ওমনি-ডিরেকশনাল প্রযুক্তি, যা বাড়ি কিংবা অফিসের সবখানেই শক্তিশালী নেটওয়ার্ক কাভারেজ দিতে সক্ষম। এতে মাল্টি ইউজার মাল্টি ইনপুট মাল্টি আউটপুট (MU-MIMO) প্রযুক্তি থাকায় একাধিক ডিভাইস কোনো বিরতি ছাড়াই দ্রুত রাউটারটিতে সংযুক্ত হতে পারবে।

ডব্লিউআর১৫ মডেলের রাউটারটিতে রয়েছে ৩টি ল্যান (LAN) এবং ১টি ওয়ান (WAN) পোর্ট। ফলে ক্যাবল সংযোগের মাধ্যমে ৩টি ডিভাইসে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহার করা যাবে। আরও উন্নত ওয়্যারলেস রিসেপশনের জন্য এতে রয়েছে এডভান্সড বিমফোর্মিং প্রযুক্তি। এছাড়া ম্যাক (MAC) এড্রেস ফিল্টারিং করে সুনির্দিষ্ট ডিভাইসে ইন্টারনেট সীমাবদ্ধ করা এবং ব্ল্যাক লিস্ট করে যেকোনো ডিভাইসকে নেটওয়ার্ক থেকে ব্লক করার সুবিধা রয়েছে। নিরাপত্তার জন্য রাউটারটিতে রয়েছে বিল্ট-ইন ফায়ারওয়াল এবং ৬৪/১২৮ বিটের এনক্রিপটেড প্রটেকশন।

ওয়ালটন রাউটার এবং নেটওয়ার্ক ডিভাইসের প্রোডাক্ট ম্যানেজার শাহাদাত হোসেইন জানান, মুক্ত স্থানে ২.৪ গিগাহার্জ ব্যান্ডে রাউটারটি ১৪০০-১৬০০ স্কয়ার ফুট পর্যন্ত জায়গায় ওয়াই-ফাই কাভারেজ দিতে সক্ষম। ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ডে এই কাভারেজ ৭০০-৮০০ স্কয়ার ফুট পর্যন্ত পাওয়া যাবে। এছাড়া সর্বশেষ প্রযুক্তির চিপসেট ব্যবহার করায় এই মডেলের রাউটারটি গ্রাহকদেরকে বর্তমানে বাজারে প্রচলিত সকল মডেলের রাউটার থেকে অনেক বেশি সুবিধা দিতে পারবে।

ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডিএমডি মো. লিয়াকত আলী বলেন, “বর্তমানে দেশে নেটওয়ার্ক ডিভাইসের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সেজন্য আমরা ওয়াই-ফাই রাউটারে ভিন্নতা এনে গ্রাহকদের হাতে সর্বশেষ প্রযুক্তি তুলে দেওয়া নিশ্চিত করছি। এছাড়াও আমাদের আপকামিং পণ্যের মধ্যে নেটওয়ার্ক সুইচ রয়েছে, যাতে বিশ্বমানের সব সুবিধা নিশ্চিত করতে আমাদের রিসার্চ টিম প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের লক্ষ্য ডিজিটাল বাংলাদেশের সর্বত্র অবাধ ইন্টারনেট এবং ওয়ারলেস প্রযুক্তি নিশ্চিত করা।”

রাউটারটি এখন দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা, ডিলার পয়েন্ট এবং অনলাইনে ই-প্লাজা এবং ওয়ালকার্টে পাওয়া যাচ্ছে। দাম মাত্র ২,৭৫০ টাকা। এতে ১ বছর পর্যন্ত বিক্রয়োত্তর সেবা দিচ্ছে ওয়ালটন।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
পৃথিবীতে পানি এলো কোথা থেকে? জানলে অবাক হবেন

banglanewspaper

পৃথিবীতে পানি এলো কোথা থেকে? এই প্রশ্নের উত্তর অনেকেই জানতে চান। অনেকে মনে করেন পৃথিবী সৃষ্টির পর পরই পানির ধারা বইতে শুরু করে। আবার আবার কেউ কেউ বলছেন পৃথিবীর জন্মলগ্ন থেকেই পানি ছিল।

বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর পানির উৎপত্তি-রহস্য সমাধান করতে গিয়ে দেখেছেন তাদের প্রমাণগুলো প্রকারান্তরে সূর্যের দিকেই নির্দেশ করছে। এই ধারণার উপর ভিত্তি করেই বা এই ধারণাটিকেই কেন্দ্রে রেখে ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকার গবেষকরা পৃথিবীতে পানির উৎস নিয়ে টানা গবেষণা করে চলেছেন।

পানির উৎপত্তি-রহস্য

তবে সব চেয়ে জোরদার প্রমাণ মেলে ২০১০ সালে। এই বছরই জাপানের হায়াবুসা মিশন দ্বারা সংগৃহীত একটি প্রাচীন গ্রহাণু বিশ্লেষণ করেছেন গবেষকদল। তারা পরামর্শ দেন, পৃথিবীর সৃষ্টির সময় থেকেই এই গ্রহে পানি এসেছিল। সূর্য থেকে চার্জযুক্ত সৌরবায়ু নামে পরিচিত কণাগুলি যখন পানির অণু তৈরি করতে শস্যের রাসায়নিক গঠনকে পরিবর্তন করে, তখন শস্যের মধ্যে এই পা তৈরি হয়েছিল। বিজ্ঞানীরা এই প্রক্রিয়াটিকে 'স্পেস ওয়েদারিং' বলে। 'নেচার অ্যাস্ট্রোনমি' জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় বিজ্ঞানীরা বলেছেন, পৃথিবীতে কোথা থেকে এল পানি, সূর্যের সৌরবায়ুই এর উত্তর দিতে পারে। সি-টাইপ উল্কাপিণ্ড

বিজ্ঞানীরা দীর্ঘকাল ধরেই পৃথিবীর মহাসাগরের প্রাচীন উৎস নিয়ে বিভ্রান্ত। বিভিন্ন তত্ত্ব পর্যালোচনা করে বোঝা যায়, এক ধরনের পানি বহনকারী গ্রহাণু রয়েছে, যা ৪.৬ বিলিয়ন বছর আগে গঠনের চূড়ান্ত পর্যায়ে এই গ্রহে কোনও ভাবে পানি নিয়ে আসতে পারে। গবেষকদের বিশ্বাস, পৃথিবীর কিছু পানি অবশ্যই সি-টাইপ উল্কাপিণ্ড থেকে এসেছে। আইসোটোপিক্যাল আলোক উৎস

পৃথিবী অবশ্যই অন্তত আরও একটি উৎস থেকে পানি পেয়েছে। সেটি হল আইসোটোপিক্যাল আলোক উৎস। কীভাবে এবং কখন পানি পৃথিবীতে পৌঁছেছে এবং এই গ্রহের ৭০ শতাংশ পৃষ্ঠকে ঢেকে রেখেছে, যা আমাদের সৌরজগতের অন্য যে কোনও পাথুরে গ্রহের চেয়ে অনেক বেশি, সেটাই বিস্মিত করে গবেষকদের। বায়ুবিহীন বিশ্বের পানির উৎস

বিজ্ঞানীরা আশা করছেন, ভবিষ্যতের মহাকাশ অভিযানগুলি বায়ুবিহীন বিশ্বের পানির উৎস খুঁজে পেতে সহায়তা করতে পারে। গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে বিজ্ঞানীদের একটি আন্তর্জাতিক দল এস-টাইপ গ্রহাণু নামে পরিচিত একটি ভিন্ন ধরনের মহাকাশ-শিলা থেকে পানি পাওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেন না। সৌরধুলো

বিজ্ঞানীরা বলেন, প্রথম দিকে সৌরজগতে একটি অত্যন্ত ধুলোময় স্থান ছিল। যা মহাকাশ-বাহিত ধূলিকণাগুলোর পৃষ্ঠের নিচে পানি তৈরির জন্য প্রচুর সুযোগ প্রদান করে। গবেষকরা পরামর্শ দেন, এই পানি-সমৃদ্ধ ধূলিকণা পৃথিবীর মহাসাগরে সরবরাহের অংশ হিসাবে সি-টাইপ গ্রহাণুর পাশাপাশি প্রথম পৃথিবীতে বৃষ্টিপাত হত। প্রাথমিক সৌরজগতের দ্বারা উৎপাদিত এই সৌর বায়ু থেকে প্রাপ্ত পানি আইসোটোপিক্যালি হালকা। এই সূক্ষ্ম দানাযুক্ত ধূলিকণা সৌর বায়ু দ্বারা প্রবাহিত হয়ে বিলিয়ন বছর আগে পৃথিবীতে আকৃষ্ট হয়েছিল।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
নজরকাড়া স্পোর্টস বাইক আনল হোন্ডা

banglanewspaper

স্পোর্টস ফিজারে নতুন নজরকাড়া বাইক আনল হোন্ডা। হোন্ডা সিবি সিরিজের এই বাইকের মডেল সিবি ৩০০ আর। ভারতে বাইকটিতে দুটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে। একটি ম্যাট স্টিল ব্ল্যাক। অন্যটি পার্ল স্পার্টান রেড।

বাইকটিতে পিজিএম-এফআই প্রযুক্তির একটি নতুন ইঞ্জিন দেওয়া হয়েছে। এই ইঞ্জিন ভারত স্টেজ ৬ নির্দেশিকা মেনে চলে। ইঞ্জিনটি একটি ২৮৬ সিসির ডিওএইচসি ৪ ভালভ লিকুইড-কুলড একক-সিলিন্ডার ইঞ্জিন। এটি দ্রুত গতির জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। এই বাইকটিতে স্লিপার ক্লাচ ফাংশনের সুবিধাও দেওয়া হয়েছে।

একটি অত্যাধুনিক ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডিজাইন, গোল্ডেন আপসাইড ডাউন ফর্কগুলো শহরের রাস্তার জন্য অত্যন্ত ভালো কাজ করে। সামনের ব্রেকের জন্য ২৯৬ মিমি হাব-লেস ফ্লোটিং ডিস্ক এবং পিছনের ২২০ মিমি ডিস্ক ব্রেক রয়েছে। এই ব্রেকে ৪-পট রেডিয়াল-মাউন্টেড ক্যালিপারগুলো ডুয়াল-চ্যানেল এবিএস দ্বারা মড্যুলেট করা হয়। এর ফলে আকস্মিকভাবে ব্রেক চাপলে ইনারশিয়াল মেজারমেন্ট ইউনিটে কাজ করে সামনে থেকে পিছনের এবিএস ব্রেকিংয়ের ক্ষেত্রে সমানভাবে ওজন ভাগ করে।

এই বাইকটিতে যতটা সম্ভব কম নকশা ব্যবহার করা হয়েছে। এরই সঙ্গে বাইকটিতে গিয়ারের পজিশন, সাইড স্ট্যান্ডের ইন্ডিকেটর এবং ইঞ্জিন ইনহিবিটরের মত ফিচার ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও বাইকটিতে সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতির মিটার ব্যবহার করা হয়েছে।

ভারতের বাজারে বাইকটির দাম ২.৭৭ লাখ রুপি।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
ভিভো ফোনের দাম কমলো

banglanewspaper

আন্তর্জাতিক বাজারে ভিভোর একটি মডেলের দাম কমানো হয়েছে। ফোনটির মডেল ভিভো ওয়াই ৭২।

২০২১ সালের জুলাইয়ে ফোনটি বাজারে এসেছিল। এটি একটি ৫জি স্মার্টফোন। এতে রয়েছে ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি রম।

এই ফোনে রয়েছে একটি ৬.৫৮ ইঞ্চির আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে।

ফোনের ডিসপ্লেতে ওয়াটারড্রপ বা টিয়ারড্রপ নচ ডিজাইন দেওয়া হয়েছে। এর ডিসপ্লেতে পাবেন ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেট ও ফুল এইচডি প্লাস রেজোলিউশন সাপোর্ট করে এই ফোন। ডিভাইসে সাইড মাউন্ট করা ফিজিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রয়েছে।

এই ফোন কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪৮০ ৫জি চিপসেট রয়েছে। ফোনটিতে ৮ জিবি ফিজিক্যাল র‍্যাম ও ৪ জিবি ভার্চুয়াল র‍্যাম ফিচার রয়েছে। একই সঙ্গে এতে ১২৮ জিবি অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ পাবেন। যা মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে বাড়ানো যেতে পারে।
এর ক্যামেরা স্পেসিফিকেশনের কথা ধরলে এতে রয়েছে দুটি রেয়ার ক্যামেরা ও একটি এলইডি ফ্ল্যাশ লাইট। ফোনের প্রাইমারি রেয়ার ক্যামেরা ৪৮ মেগাপিক্সেলের। এছাড়াও ফোনে একটি ২মেগাপিক্সেলের বোকেহ ক্যামেরা পাওয়া যায়। সেলফির জন্য ফোনে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

অ্যানড্রয়েড ১১ চালিত ফোনটিতে কানেক্টিভিটির জন্য এতে ডুয়াল সিম কার্ড, ৫জি নেটওয়ার্ক, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ৫.১, ইউএসবি টাইপ সি ও ৩.৫ এমএম অডিও জ্যাক দেওয়া হয়েছে।

ব্যাকআপের জন্য আছে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি। যা চার্জ দেয়ার জন্য ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার দেয়া হয়েছে।

ট্যাগ:

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
কম্পিউটারে বাংলা প্রচলনের পথিকৃত সাইফুদ্দাহার শহীদের মৃত্যুতে শোক

banglanewspaper

কম্পিউটারে বাংলা প্রচলনের পথিকৃত প্রকৌশলী সাইফুদ্দাহার শহীদের মৃ্ত‌্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। গতকাল রোববার রাতে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে ইন্তেকাল করেন।

মন্ত্রী সোমবার এক শোকবার্তায় কম্পিউটারে বাংলা প্রচলনে মরহুম প্রকৌশলী সাইফুদ্দাহার শহীদের অবদান গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে বলেন, যত দিন প্রযুক্তিতে বাংলা ব‌্যবহৃত হবে ততদিন তিনি চির জাগরূক হয়ে থাকবেন।

ডিজিটাল প্রযুক্তিতে বাংলা ভাষার অন্যতম উদ্ভাবক মোস্তাফা জব্বার বলেন, ১৯৮৪ সালের জানুয়ারি মাসে অ্যাপল কম্পিউটার ম্যাকিন্টোস কম্পিউটার বাজারজাত করার পর সাইফুদ্দাহার শহীদ লন্ডনে বসেই ম‌্যাক অপারেটিং সিস্টেম এবং ম‌্যাক রাইট সফটওয়্যারের বাংলা অনুবাদ করেন ও একটি বাংলা ফন্ট তৈরি করেন। এই উদ্ভাবনকেই তিনি শহিদলিপি নামে বাজারজাত করেন।

এই সফটওয়‌্যারটি প্রথমে জাতীয় গণমাধ‌্যম ইনস্টিটিউটে ব‌্যবহৃত হয় বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

এরপর শহীদলিপি বিভিন্ন সাময়িকী ও সংবাদপত্র প্রকাশনাতেও ব্যবহৃত হয়। যদিও শারিরীক অসুস্থতা ও বিদেশ চলে যাবার ফলে শহীদলিপির আপডেট আর হয়নি তবু পথ প্রদর্শক হিসেবে সাউফুদ্দাহার শহীদ বাংলা ভাষাভাষীদের কাছে অমর হয়ে থাকবেন। মন্ত্রী তার মৃত‌্যুতে অপুরণীয় ক্ষতি হয়েছে বলে মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

ট্যাগ: