banglanewspaper

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় ৭ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার মেয়ের মা বাদি হয়ে রাণীনগর থানায় ধর্ষন মামলা দায়ের করেন। মামলার পর রাণীনগর থানা পুলিশ মঙ্গলবার ভিকটিম স্কুল ছাত্রীর মেডিক্যাল চেকআপ সম্পন্ন করেছেন। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক পলাতক রয়েছে।

মামলা ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হরিশপুর গ্রামের আজিজার সরদারের ছেলে মোমিন হোসেন সরদার ওরফে মোহন (২৩) পার্শবতী আতাইকুলা উত্তরপাড়া গ্রামের জনৈক ব্যক্তির স্কুল পড়–য়া ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। সেই সুবাদে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে গত ৭ জুন শুক্রবার মেয়েকে নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যায়। এর পর তাকে বেশ কয়েকবার ধর্ষন করে ঘটনার দুই দিন পর বিয়ে না করেই কৌশলে তাকে নওগাঁ তাজের মোড়ে রেখে যায়। 

এ ঘটনায় মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে রাণীনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের তদন্ত অন্তে সোমবার মোমিন হোসেন সরদার ওরফে মোহনকে প্রধান আসামী করে ৫ জনের নাম উল্লেখসহ ২-৩ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে স্কুল ছাত্রীর মা বাদি হয়ে রাণীনগর থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করেন। মামলার পর মঙ্গলবার স্কুল ছাত্রীর মেডিক্যাল চেকআপ সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান বলেন, বিয়ের প্রলোভনে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদি হয়ে থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার পর থেকে মূল আসামী মোহনসহ সবাই পলাতক থাকায় কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে আসামী গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 রাণীনগর