banglanewspaper

দেশের ২১ জেলায় ডেঙ্গু রোগী শনাক্তের পরিপ্রেক্ষিতে এই রোগের বাহক এডিস মশার উৎসস্থল পরিচ্ছন্ন করতে মাঠে নামছে ক্ষমতাসীন দল।

দুপুরে ধানমন্ডিতে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে এ কথা জানান দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

চলতি বছর ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড ছাড়িয়েছে। ঢাকায় এরই মধ্যে ১০ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে। তিন জন চিকিৎসক, ঢাকা এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন করে শিক্ষার্থীসহ ২৫ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যুর তথ্য এসেছে গণমাধ্যমে। যদিও সরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা আরো কম।

ঢাকার পাশাপাশি প্রথমবারের মতো বিভিন্ন জেলা শহরেও পাওয়া যাচ্ছে ডেঙ্গু রোগী। এদের সিংহভাগই আবার ঢাকা থেকে এলাকায় গেছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রায় ২১টি জেলায় ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। এটা নিয়ে আমাদের করণীয় আছে। শুধু সরকারি দায়িত্ব পালনের মধ্যে আমাদের কর্মকাণ্ড স্বীমিত রাখতে চাই না। দলীয়ভাবে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি তিনদিনব্যাপী সচেতনতামূলক, সতর্কতা মুলক ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান পালন করব।’

ডেঙ্গুর বাহন এডিস ইজিপ্টি মশার জন্ম হয় পরিচ্ছন্ন পানিতে। ঘরোয়া পরিবেশেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এসব মশার প্রজনন হয় বলে ধারণা করা হয়। কিন্তু এ নিয়ে জনসচেতনতারও ঘাটতি আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কাদের বলেন, ‘৩১ জুলাই, ২ আগস্ট ও ৩ আগস্ট বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত সারা বাংলাদেশের জেলা উপজেলা ইউনিয়ন পর্যন্ত পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনা করব।’

‘এর সঙ্গে সতর্কতা ও সচেতনতামূলক লিফলেটও বিতরণ করব। এটা আমাদের দলীয় প্রধান জননেত্রী নেত্রীর নির্দেশে দলীয় কর্মসূচি। ডেঙ্গু বিরোধী পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হবে।’

ডেঙ্গু নিয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকনের মন্তব্য নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘তাদেরকে (দুই মেয়র) যা বলা প্রয়োজন ছিল, তা বলে দেওয়া হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতিদিনই দুই মেয়রের সঙ্গে কথা বলছেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলছেন। যখন যার সঙ্গে কথা বলা দরকার বলছেন।’

‘তাদের কথা বার্তায় স্লিপ হতে পারে, তারাও তো মানুষ। তবে তাদের আন্তিরিকতা আছে।’

দৈনিক প্রথম আলো এক প্রতিবেদনে দাবি করেছে ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে তিন লাখ। আর দুই দিন পর মেয়র গত বৃহস্পতিবার বলেন, ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে ছেলেধরার গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ডেঙ্গু একটা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। এই ব্যপারে আমরা সবাই সচেতন। প্রথম দিকে এতটা প্রকট হবে এটা হয়ত বা কেউ ভাবেনি। যখন এর বিস্তার ভয়াবহ পর্যায়ে চলে এসেছে, তখন কিন্তু আমরা কেউ নিষ্ক্রিয় থাকিনি। দলীয়ভাবেও চেষ্ট করছি।’

‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসার জন্য লন্ডনে আছেন। চিকিৎসার ব্যপারটা না হলে এই মুহূর্তে বিদেশে থাকার কথা নয়।  তিনি আমাদের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা চলাকালেও  ফোন করে নির্দেশনা দিয়েছেন। দুই মেয়রের সঙ্গে প্রতি নিয়তই টেলিফোনে কথা বলছেন, নির্দেশনা দিচ্ছেন।’

ডেঙ্গু নিয়ে আগেই সতর্ক করা হয়েছিল বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বক্তব্যে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে সড়ক মন্ত্রী বলেন, ‘ডেঙ্গুর যে ভয়, সে ভয়কে আমরা জয় করব বলে বিশ্বাস করি।’

ডেঙ্গু মশা নিধনে কার্যকর ওষুধ ছিটানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা আগের ওষুধের অকার‌্যকারিতার প্রমাণ কি না, এমন প্রশ্নের মুখেও পড়েন কাদের। জবাবে তিনি বলেন, ‘সেটা না, দীর্ঘ দিন হয়ত ওষুধ পড়ে থাকার কারণে কার‌্যকারিতা হারাতে পারে, এর জন্যই কার‌্যকর ওষুধ প্রয়োগের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’  

ট্যাগ: bdnewshour24 এডিস মশা আওয়ামী লীগ

জাতীয়
‘আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার’ পেলো বাংলাদেশ

banglanewspaper

অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থা ডি-৮ এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ ‘আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার’ পেয়েছে। তুরস্ক প্রজাতন্ত্রের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অধ্যাপক ড. নাজমুদ্দিন এরবাকান স্মরণে এই পুরস্কার দেওয়া হয়।

সোমবার (১ আগস্ট) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (পিএমও) প্রেস উইংয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, অধ্যাপক ড. নাজমুদ্দিন এরবাকান ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সভাপতি ড. ফাতিহ এরবাকান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন।

জর্জিয়া, তুর্কমেনিস্তান ও ডি-৮-এর দায়িত্ব পালনকারী তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মসয়ূদ মান্নান সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে শেখ হাসিনার হাতে পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট ও চিঠি তুলে দেন।

ট্যাগ:

জাতীয়
বঙ্গবন্ধুর মতো অসহযোগ আন্দোলন পৃথিবীর কোনো নেতা করতে পারেননি : প্রধানমন্ত্রী

banglanewspaper

বঙ্গবন্ধুর মতো অসহযোগ আন্দোলন পৃথিবীর কোনো নেতা করতে পারেননি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার শোকের মাস উপলক্ষে কৃষকলীগের স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির উদ্বোধনের সময় তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা ছিল জাতির জন্য সবচেয়ে কলঙ্কিত ঘটনা। মানুষের ভালোবাসার টানে নিজের পুরো জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। অথচ তাকেই সপরিবারে হত্যা করা হলো।

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে মানুষের জন্য কাজ করেছেন। তার জীবনে ক্ষমতার কোনো লোভ ছিল না। তিনি দেশের মানুষের জন্য আত্মত্যাগের নজির রেখে গেছেন।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শত কষ্টের পরও বঙ্গবন্ধু কোথাও অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেননি। পূর্ব বাংলার মানুষের কষ্ট তিনি সহ্য করতে পারেননি। ক্ষমতা, পদ-পদবীর লোভের ঊর্ধ্বে থেকে তিনি মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন।’

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘বিএনপির সময় বাংলাদেশ দুর্নীতিতে এক নম্বরে ছিল। বিএনপির আমলে ভোটের অধিকারই ছিল না মানুষের। এখন তাদের কাছ থেকে নীতি কথা শুনতে হয়। যারা দেশটাকে সন্ত্রাসের দেশ, জঙ্গিবাদের দেশ, বাংলা ভায়ের দেশ বানিয়েছিল, তারা দেশের টাকা পাচার করেছিল। সেই টাকা আমরা ফিরিয়ে এনেছি।’

ট্যাগ:

জাতীয়
ইউরিয়ার দাম কেজিতে ৬ টাকা বাড়ল

banglanewspaper

দেশে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হওয়া ইউরিয়া সারের দাম বেড়েছে। কেজি প্রতি এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৬ টাকা বেশি দরে।

বাড়তি দাম সোমবার (১ আগস্ট) থেকে কার্যকর করা হয়েছে।

ইউরিয়া সারের ব্যবহার যৌক্তিক পর্যায়ে রাখা এবং আন্তর্জাতিক বাজারে সারের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম বাড়ানো হয়েছে বলে জানায় কৃষি মন্ত্রণালয়।

সোমবার (১ আগস্ট) কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে দেশে ডিলার পর্যায়ে ইউরিয়া সারের সর্বোচ্চ খুচরা দাম কেজিপ্রতি ১৪ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০ টাকা এবং কৃষক পর্যায়ে এক কেজি ১৬ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২২ টাকায় বিক্রয় হবে।

কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, এ দাম বাড়ানোর পরও সরকারকে প্রতি কেজি সারে ৫৯ টাকা ভর্তুকি দিতে হবে। ২০০৫-০৬ অর্থবছরে ভর্তুকির পরিমাণ ছিল মাত্র ১৫ টাকা।

মন্ত্রণালয়ের মতে ডিএপি সারে শতকরা ১৮ শতাংশ নাইট্রোজেন বা ইউরিয়া সারের উপাদান রয়েছে। সেজন্য ডিএপির ব্যবহার বাড়িয়ে ইউরিয়া সারের অপ্রয়োজনীয় ও মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার কমিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ জন্য সরকার ডিএপি সারের মূল্য প্রতিকেজি ৯০ টাকা থেকে কমিয়ে ১৬ টাকা করে কৃষকদের দিয়ে যাচ্ছে। এ উদ্যোগের ফলে বিগত কয়েক বছরে ডিএপি সারের ব্যবহার দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

এক হিসেবে দেখা যায় ২০১৯ সালে ডিএপি ব্যবহার হতো ৮ লাখ টন, বর্তমানে ব্যবহার হচ্ছে ১৬ লাখ টনের বেশি। তবে সে অনুযায়ী ইউরিয়া সারের ব্যবহার কমেনি। ২০১৯ সালে ইউরিয়া ব্যবহার হতো ২৫ লাখ টন, যা বর্তমানে ২৬ লাখ ৫০ হাজার টন লাগছে।

ট্যাগ:

জাতীয়
ট্রেন কাউকে ধাক্কা দেয় না, অন্যরা এসে ধাক্কা খায়: রেলমন্ত্রী

banglanewspaper

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, রেল লাইনে যেসব দুর্ঘটনা হয়েছে তার জন্য রেল দায়ী নয়।

সোমবার ( ১ আগস্ট) সকাল ১১টায় গোপালগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর দেশব্যাপী প্রদর্শনের শুভ সূচনা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, রেল লাইনে কোনো দুর্ঘটনা হলে দোষ রেলের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হয়। রেল কাউকে ধাক্কা দিতে যায় না। অন্যরা রেলের ওপর এসে ধাক্কা খায়। আরেকজন এসে রেলে ধাক্কা খাবে তার দায় রেলের ওপর দেওয়া হবে এটা যুক্তিসঙ্গত নয়। এই জায়গাটিতে আমাদের একটু সচেতনার প্রয়োজন আছে।

রেলমন্ত্রী বলেন, কোনো দুর্ঘটনা ও মৃত্যুই আমাদের কাম্য নয়। কিন্তু রেল লাইনের যেসব দুর্ঘটনা ঘটেছে সেগুলো রেলের দুর্ঘটনা নয়। রেলের দুর্ঘটনা সেটাই যদি রেল লাইনচ্যুত হয়। যদি ট্রেন রেলপথ ছেড়ে কোনো বাড়িতে ঢুকে বা অন্য রাস্তায় চলে যায় তাহলে সেটা হবে রেল দুর্ঘটনা। এই জায়গাগুলো আমাদের বিবেচনায় নিতে হবে।

তিনি বলেন, রেলের যেসব গেট আছে সেগুলোর দায়িত্ব যারা রাস্তা করেছে তাদের নিতে হবে। রাস্তা করে তো তারা খালাস। নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করবেন তারা। কোনো দুর্ঘটনা যাতে না হয় সেটা এককভাবে রেলের ওপরে না দিয়ে যৌথভাবে কীভাবে ‍নিশ্চিত করতে পারি, সেই ব্যবস্থা আমাদের খুঁজে বের করতে হবে। বাইরে থেকে যেন কোনোকিছু রেল চলার পথে অনিরাপদ করতে না পারে।

তিনি আরও বলেন, খুলনার সঙ্গে মোংলার রেল যোগাযোগ ছিল না। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে মোংলার পোর্টের সঙ্গে রেল যোগাযোগ স্থাপিত হবে।

জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে রেলওয়ের মহাপরিচালক ডি এন মজুমদার, অতিরিক্ত মহাপরিচালক মঞ্জুরুল আলম, পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দীকা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান বক্তব্য রাখেন।

দুপুরে মন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধি সৌধ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে সেখানে বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্টে শহীদদের রূহের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন।

ট্যাগ:

জাতীয়
‘ঢাকা থেকে শিশুদের করোনার টিকা দেওয়া শুরু হবে’

banglanewspaper

ঢাকা শহর থেকে ৫ থেকে ১২ বছর বয়সী শিশুদের করোনা টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে।

সোমবার (১ আগস্ট) কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার খুরশিদ আলম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, বর্তমানে যে পরিমাণ টিকা রয়েছে, তাতে দেশের সব শিশুদের টিকা দেওয়া সম্ভব নয়। তাই ঢাকা শহরের একটি কেন্দ্রে প্রাথমিকভাবে টিকা দেওয়া শুরু করব। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে শিশুদের টিকা দেওয়া হবে।

ডা. খুরশিদ আলম বলেন, টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে বলা হয়েছে। স্কুল থেকে রেজিস্ট্রেশন করে টিকার পরিমাণ জানালে আমরা স্কুলে গিয়ে টিকা দিয়ে আসব। এটা বিশেষ টিকা, চাইলেই সবসময় পাওয়া যায় না।

তবে শিশুদের টিকাদান বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বিস্তারিত জানাবেন বলে জানান তিনি।

ট্যাগ: