banglanewspaper

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে শনিবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দারুণ জয় পেয়েছে আফগানিস্তান। রশীদ খানরা মাসাকাদজাদের হারিয়েছে ২৮ রানে। অন্যদিকে, দুই ম্যাচ খেলে দুইটিতেই হারল জিম্বাবুয়ে। গতকাল বাংলাদেশের কাছে তারা ৩ উইকেটে হেরেছিল। আগামীকাল (রবিবার) মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে আফগানিস্তানের দেয়া ১৯৮ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৯ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় জিম্বাবুয়ে।

দলের পক্ষে ২২ বলে ৪২ রান করে অপরাজিত থাকেন রেজিস চাকাভা। ১৬ বলে ২৭ রান করেন ব্রেন্ডন টেইলর। ২৫ রান করেন বার্ল। আফগান বোলারদের মধ্যে ফরিদ আহমদ ২টি, রশীদ খান ২টি, করিম জানাত ১টি ও গুলবদিন নাইব ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

জিম্বাবুয়ে শুরু থেকেই একের পর এক উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে দলীয় ২৫ রানে রান আউট হয়ে ফিরে যান ওপেনার মাসাকাদজা। চতুর্থ ওভারে ব্রেন্ডন টেইলর ও শন উইলিয়ামসকে ফিরিয়ে জিম্বাবুয়েকে চরম বিপাকে ফেলেন পেসার ফরিদ আহমদ।

সপ্তম ওভারে ক্রেইগ আরভিনকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন করিম জানাত। ১২তম ওভারে রশীদ খানের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে নাজিব তারাকাইয়ের হাতে ক্যাচ হন মুতোমবোদজি। দলের রান যখন ৯৬ তখন রশীদের বলে বোল্ড হন রায়ান বার্ল। এরপর চাকাভা একটু মেরে খেললেও দলের জয়ের জন্য তা যথেষ্ট ছিল না।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকটে ১৯৭ রান সংগ্রহ করে আফগানরা। দলের পক্ষে ৩০ বলে পাঁচটি চার ও ছয়টি ছক্কার সাহায্যে ৬৯ রান করে অপরাজিত থাকেন নাজিবউল্লাহ। ১৮ বলে চারটি ছক্কার সাহায্যে ৩৮ রান করেন মোহাম্মদ নবী।

১৫ ওভার শেষে আফগানিস্তানের রান ছিল চার উইকেটে ১০৯। শেষ পাঁচ ওভারে তারা নেয় ৮৮ রান। পঞ্চম উইকেট জুটিতে নাজিবউল্লাহ ও নবী মিলে ১০৭ রানের জুটি গড়েন। জিম্বাবুয়ের বোলারদের মধ্যে সাতারা ২টি, উইলিয়ামস ২টি ও এনডিলোভু ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ২৮ রানে জয়ী আফগানিস্তান।

আফগানিস্তান ইনিংস: ১৯৭/৫ (২০ ওভার)

(রহমানুল্লাহ গুরবাজ ৪৩, হযরতউল্লাহ জাজাই ১৩, নাজিব তারাকাই ১৪, আসগার আফগান ১৪, নাজিবউল্লাহ জাদরান ৬৯, মোহাম্মদ নবী ৩৮*; এনডিলোভু ১/৩৫, জারভিস ০/৫৩, সাতারা ২/৫৩, উইলিয়ামস ২/১৬, বার্ল ০/৪, মাদজিভা ০/৩৪)।

জিম্বাবুয়ে ইনিংস: ১৬৯/৭ (২০ ওভার)

(ব্রেন্ডন টেইলর ২৭, হ্যামিলটন মাসাকাদজা ৩, ক্রেইগ আরভিন ১০, শন উইলিয়ামস ০, মুতোমবোদজি ২০, রায়ান বার্ল ২৫, চাকাভা ৪২*, মাদজিভা ১৫, জারভিস ১৫*; মুজিব উর রহমান ০/২৯, ফরিদ আহমদ ২/৩৫, করিম জানাত ১/২৯, মোহাম্মদ নবী ০/৯, গুলবদিন নাইব ১/৩২, রশীদ খান ২/২৯)।

প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: নাজিবউল্লাহ জাদরান (আফগানিস্তান)।

ট্যাগ: bdnewshour24 জিম্বাবুয়ে

খেলা
নাহিদুলের ঘূর্ণিতে বড় ব্যবধানে হারল সাকিবরা

banglanewspaper

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বোলিং অলরাউন্ডার নাহিদুল ইসলামের ঘূণির্তে ৬৩ রানের বড় ব্যবধানে হারল সাকিব আল হাসানের ফরচুন বরিশাল। ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান তুলে কুমিল্লা। জবাবে খেলতে নেমে ৯৫ রানে থেমেছে বরিশালের ইনিংস।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দেয়া ১৫৯ রানের জবাবে ব্যাট করতে নামা বরিশালের শুরুটা ভালো হতে দেননি নাহিদুল ইসলাম। প্রথম ওভারেই মেডেনসহ নেন একটি উইকেট। আর ৪ ওভারে মাত্র ৫ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। তার ঘূর্ণিতে পরাস্ত হয়েছেন গেইল-সাকিবরা। একাই যেন টুঁটি চেপে ধরেছিলেন তিনি। এমন কিপটে বোলিংয়ে শহীদ আফ্রিদির রেকর্ডে ভাগ বসালেন কুমিল্লার স্পিনার নাহিদুল। বিপিএলে পুরো ৪ ওভার করেছেন এমন বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে কম ইনোকমি আফ্রিদি ও নাহিদুলের। আফ্রিদি ২০১৫ সালে সিলেট সুপারস্টার্সের হয়ে বরিশাল বুলসের বিপক্ষে ৪ ওভারে ৫ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ২ উইকেট।

বরিশালের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৬ রানের ইনিংসটি খেলেন ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত। এছাড়া তৌহিদ হৃদয় ১৯ এবং নুরুল হাসান সোহান করেন ১৭ রান। বাকিরা কেউই দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি।

এর আগে ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে কুমিল্লার ১৫৮ রানের ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন মাহমুদুল হাসান জয়। এছাড়া ১৬ বলে দ্রুত ২৯ রান ‍তুলে অপরাজিত থাকেন করিম জানাত। আর ক্যামেরুন ডেলপোর্ট ১৯, মুমিনুল হক ১৭ এবং ইমরুল কায়েস করেন ১৫ রান।

ট্যাগ:

খেলা
তামিমের সঙ্গে পাপনের দু’দফা বৈঠক

banglanewspaper

বাংলাদেশ জাতীয় দলের জার্সিগায়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল খেলবেন না- বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপনের এমন মন্তব্যের পর ক্রিকেট পাড়ায় শোরগোল শুরু হয়েছে। দলের দলের টি-টোয়েন্টি আসলেই খেলবেন কিনা- সে বিষয়ে কথা বলতেই তামিমের সঙ্গে দুই দফায় বৈঠক করেন বিসিবি সভাপতি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে(বিপিএল) দিনের প্রথম ম্যাচে সিলেট সানরাইজার্সে বিপক্ষে মাঠে নামে মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। দলের হয়ে এদিন মাঠে নামেন ঢাকার ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালও। কিন্তু লো-স্কোরিং ম্যাচে সিলেটের সঙ্গে পেরে উঠেনি ঢাকা। হেরেছে ৭ উইকেটে।

ম্যাচ শেষ করে পাপনের সঙ্গে বৈঠকে বসেন তামিম ইকবাল খান। গতকালও তামিমের সঙ্গে গোপনে বৈঠকে বসেছিলেন বিসিবি সভাপতি। আজ (মঙ্গলবার) মিরপুরে সাংবাদিকদের সামনে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘গতকালকেও তামিমের সঙ্গে লম্বা মিটিং হয়েছে। একটু আগে তামিমের সাথে মাননীয় সভাপতি, আমিও ছিলাম; আমাদের সাথে একটা মিটিং হয়েছে তামিমকে নিয়ে, তার পরিকল্পনা নিয়ে। পরিকল্পনা আমি বলতে পারছি না। পরে আপনারা তামিমের মুখে শুনতে পারবেন।’

এরপর তামিম সাংবাদিকদের সামনে কথা বললেও এই ইস্যুতে তার মুখ থেকে আসেনি কোনো কথা। একই ভূমিকা পালন করেন জাতীয় দলের টিম পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনও। তবে তামিম এ বিষয়ে পরে মন্তব্য করবেন বলে এক বিস্তত্ব সূত্র থেকে জানা যায়।

ট্যাগ:

খেলা
রাজার বাউন্সারে মাথায় আঘাত, মাঠ ছাড়লেন ফ্লেচার

banglanewspaper

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে(বিপিএল) দিনের দ্বিতীয় ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসের সপ্তম ওভারে রেজাউর রহমান রেজা করা বাউন্সার খুলনা টাইগারসের ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচারে মাথায় আঘাত করলে তৎক্ষণাৎ স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়েন এই ক্যারিবিয়ান ব্যাটার।

ম্যাচের শুরুতে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৯০ রান সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারিয়ে ৪৫ রান তুলে খুলনা।

সপ্তম ওভারে বল করতে আসেন চট্টগ্রামের উদীয়মান পেসার রেজাউর রহমান রাজা। প্রথম বলটি বাউন্সার দেন চট্টগ্রামের পেসার রেজাউর রহমান রাজা। সেটি পুল করতে চেয়েছিলেন আন্দ্রে ফ্লেচার। তবে ব্যাট-বলে সংযোগ করতে পারেননি। বলটি আঘাত করে ফ্লেচারের মাথা এবং কাঁধের মাঝের অংশে। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুড়িয়ে পড়েন এই ক্যারিবীয়।

দ্রুতই ডাগআউট থেকে ছুটে আসে চট্টগ্রামের মেডিকেল টিম। কিছুক্ষণ প্রাথমিক সেবা দেওয়ার পরেও উঠে দাঁড়ানোর অবস্থা ছিল না ফ্লেচারের। তাই স্ট্রেচারে করে মাঠের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। সেখানেই দেওয়া হচ্ছে পরবর্তী চিকিৎসা।

ট্যাগ:

খেলা
মূলপর্বে উঠার লড়াইয়ে সোমবার লঙ্কানদের মুখোমুখি টাইগ্রেসরা

banglanewspaper

কমনওয়েলথের ক্রিকেটপর্বের বাছাইপর্বে টানা তিন ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ নারী দল। তবে মূলপর্বে উঠতে আরও একটি ম্যাচ জিততে হবে নিগার সুলতানাদের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেই অঘোষিত ফাইনাল ম্যাচে সোমবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে মাঠে নামবে বাংলাদেশের মেয়েরা।

মালয়েশিয়া এবং থাইল্যান্ডের দাপুটে জয়ের পর গ্রুপপর্বে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে স্কটিশদের বিপক্ষে খেলতে নামে বাংলাদেশের মেয়েরা। এদিন ম্যাচে টস হেরে প্রথমে বোলিং করতে নামে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ বোলারদের সামনে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি স্কটল্যান্ডের ব্যাটারা। ১৭ দশমিক ৩ ওভারে মাত্র ৭৭ রানে অলআউট হয় স্কটিশরা।

দলের মাত্র দুই ব্যাটার দুই অঙ্কের ঘরে পা দিতে পারেন। বাংলাদেশের সালমা খাতুন-সুরাইয়া আজমিন-নাহিদা আক্তার-সানজিদা আক্তার মেঘলা দুটি করে এবং রিতু মনি নেন একটি উইকেট।

মাত্র ৭৮ রানের টার্গেট স্পর্শ করতে গিয়ে প্রথম বলেই ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। ইনিংসের প্রথম বলেই আউট হন ওপেনার শামীমা সুলতানা। খালি হাতে ফিরেন তিনি। এরপর ৭৮ রানের জুটি গড়ে ২৮ বল বাকি রেখেই বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করেন মুরশিদা খাতুন ও ফারজানা হক। মুরশিদা ৫৫ বলে ৬টি চার ও ১টি ছক্কায় অপরাজিত ৫০ রান করেন। ৩৬ বলে অপরাজিত ২০ রান করেন ফারজানা। ম্যাচ সেরা হন মুরশিদা।

এ জয়ের মাধ্যমেই কমনওয়েলথের মূলপর্বে উঠার পথটা আরও একটু মসৃণ হলো। কিন্তু বাছাইপর্বের পাঁচ দলের মধ্য থেকে মূলপর্বে মাত্র একটি দল খেলার সুযোগ পাবে। বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কা উভয় দল তিনটি করে ম্যাচ জিতেছে। ফলে নিজেদের মধ্যকার বাছাইপর্বে শেষ ম্যাচে যে দল জিতবে তারাই মূলপর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।

ট্যাগ:

খেলা
তামিম-সাকিবদের বোলিং কোচ হতে চান টেইট

banglanewspaper

ওটিস গিবসনের দায়িত্ব ছাড়ার পর বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পেস বোলিং কোচের জায়গায় এখনও জায়গা নিয়োগ দেওয়া হয়নি। সেই খালি জায়গায় নিজেকে রাখতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান সাবেক পেসার শন টেইট। সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেছেন টেইট।

একদিন পরেই পর্দা উঠতে যাচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের(বিপিএল) অষ্টম আসরের। বিপিএলের এবারের আসরে চট্টগ্রামের চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে কাজ করতে এখন ঢাকায় অবস্থান করছেন শন টেইট। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের এক ভিডিও বার্তায় ৩৮ বছর বয়সী সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার জানিয়ে রাখলেন নিজের আগ্রহের ব্যাপারে, ‘অবশ্যই আমি বাংলাদেশের কোচ হতে আগ্রহী। তাদের হাতে অবশ্য সময় আছে, কাকে বেছে নেবে। তবে এটা অবশ্যই আমার জন্য দারুণ হবে।’

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে এক আসরে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে টেইটের। তাকে দলে ভিড়িয়েছিল চট্টগ্রাম কিংস। ওই মৌসুমেই বাংলাদেশ পেস অ্যাটাকে যুক্ত হন তাসকিন আহমেদ, যিনি বর্তমানে নির্ভরতার প্রতীক। টেইটের দলে আছেন মৃত্যুঞ্জয়, শরিফুল, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ ও রাজার মতো তরুণ পেসাররা।

এবারের চট্টগ্রাম দলের তরুণ পেসারদের নিয়ে টেইট বলেন, ‘বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে বেশ কিছু প্রতিভাবান তরুণ ক্রিকেটার রয়েছে, যারা ভবিষ্যতে দুর্দান্ত ক্রিকেটার হয়ে উঠতে পারে। আমাদের দলে তাদের বেশ কজন আছে। শরিফুল যেমন, আগ্রাসী বাঁহাতি বোলার। আমাদের দলেরও গুরুত্বপূর্ণ অংশ হবে সে। নিজেকে তুলে ধরার মতো যথেষ্ট ক্রিকেট সে খেলে ফেলেছে এর মধ্যেই। তাদের সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে আমি।’

ট্যাগ: